অস্ট্রেলিয়ায় ধরা পড়লো মহাকাশ থেকে আসা রহস্যময় রেডিও ওয়েভ

অস্ট্রেলিয়ায় ধরা পড়লো মহাকাশ থেকে আসা রহস্যময় রেডিও ওয়েভ
 একটা রহস্যময় কসমিক রেডিও বার্স্ট- অর্থাৎ সেকেন্ডের মাঝে উদয় হয়ে আবার অদৃশ্য হয়ে যাওয়া রেডিও ওয়েভ শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার গবেষকেরা। রহস্যময় এই রেডিও ওয়েভ এসেছে মহাকাশের হাজার হাজার আলোকবর্ষ দূর থেকে, আর এর শক্তি ছিলো অসাধারণ।

এমিলি পেট্রফ নামের এক অ্যাস্ট্রোফিজিসিস্ট এই রেডিও বার্স্ট শনাক্ত করেন। সারা পৃথিবীর গবেষকেরা এর ব্যাখ্যা খুঁজে বেড়াচ্ছেন। এক দিনে সূর্য যতটা শক্তি উৎপাদন করে সেই পরিমাণ শক্তি ছিলো মাত্র একটি বার্স্টের মধ্যে। এর উৎস যাই হোক না কেন সেটা বিশাল, আর তা সম্ভবত পৃথিবী থেকে ৫.৫ বিলিয়ন আলোকবর্ষ দূরে। কোনো একটি নিউট্রন স্টার ধ্বংসের মুহূর্তে অথবা খুব শক্তিশালী ম্যাগনেটিক ফিল্ড আছে এমন কোনো নিউট্রন স্টারের থেকে আসতে পারে এই রেডিও বার্স্ট। কিন্তু নিশ্চিত করে কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না এখনো। মানুষ এসব ওয়েভ শনাক্ত করতে পারে রেডিও টেলিস্কোপের মাধ্যমে, আর এসব সংকেত আসে অনেক দূরদূরান্তের গ্যালাক্সি থেকে যার ফলে এদেরকে দেখতে পাওয়া যায় খুব কম সময়ের জন্য। ঠিক কতো দূর থেকে এসব বার্স্ট আসে বা এদের উৎস কি, তা এখনো জানতে পারেননি বিজ্ঞানীরা।

২০০৭ সালে প্রথম এমন বার্স্ট দেখতে পাওয়া যায়। তার পর থেকে আরও আটটি এমন বার্স্ট শনাক্ত করা গেছে এ পর্যন্ত। কিন্তু সব সময়েই গবেষকেরা এই বার্স্ট চলে চলে যাবার পরে এর ব্যাপারে জানতে পারেন। এই প্রথম একেবারে সময়মতো একে শনাক্ত করতে পারেন অস্ট্রেলিয় গবেষক পেট্রফ। এমন সময়মতো শনাক্ত করা সম্ভব হলে এর উৎস খোঁজা আগের চাইতে সহজ হতে পারে। একুয়ারিয়াস নক্ষত্রপুঞ্জের কাছে এক দেখা গেছে। প্রথম অস্ট্রেলিয়ায়া একে শনাক্ত করার পর পৃথিবীর অন্যান্য স্থানের বিভিন্ন রেডিও টেলিস্কোপ থেকেও এর আফটারএফেক্ট দেখতে পাওয়া যায়।

Share This Post

Post Comment