গরুর মাংস স্বাস্থ্যকর দারুণ রেসিপি।

গরুর মাংস স্বাস্থ্যকর দারুণ রেসিপি।
যদিও গরুর মাংসে থাকা উচ্চ মাত্রায় আয়রন, প্রোটিন ও অন্যান্য পুষ্টিগুণ যা দেহের জন্য প্রয়োজন। বেশী মশলা দিয়ে তেলতেলে গরুর মাংসের কারি খেতে ইচ্ছা করে না? তাহলে জেনে নিন ফারাহ তানজীন সুবর্ণার একটি দারুণ রেসিপি। বাড়তি তেল মশলা ছাড়াও যে গরুর মাংস মজা হয় স্বাদে, তাও আবার শাক-সব্জি সহযোগে, সেটা এই খাবারটি খেলেই বুঝবেন। চলুন, জেনে নিই পালং শাক দিয়ে গরুর মাংসের রেসিপি।

উপকরণ

গরুর মাংস – ১ কেজি (ছোট করে টুকরা করা)
পালং শাক – ২ আঁটি (ফুটন্ত পানিতে চুবিয়ে নিয়ে পানি চিপে ফেলে কেটে নেওয়া)
পেঁয়াজ – ১ টা (বড়, কুঁচি করে কাটা)
মরিচ গুঁড়া – ১ চা চামচ (ঝাল কম-বেশি আপনার অভিরুচি)
হলুদ গুঁড়া – ২/৩ চা চামচ
জিরা গুঁড়া – ২ চা চামচ
ধনে গুঁড়া – ১ চা চামচ
আদা বাটা – দেড় টেবিল চামচ
রশুন বাটা – ১/২ চা চামচ
লবণ – স্বাদ মত
আস্ত গরম মশলা – এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ প্রতিটা ৩ টা করে
গরম মশলা গুঁড়া – ১/৩ চা চামচ
তেজপাতা – ৩/৪ টা
কাঁচা মরিচ – ৬/৭ টা (আস্ত)
তেল – আধা কাপ

প্রণালী

  • -প্যানে তেল গরম করে তেজপাতা আর গরম মশলার ফোঁড়ন দিয়ে পেঁয়াজ ছেড়ে দিন। সোনালি করে ভেজে নিয়ে মরিচ গুঁড়া, হলুদ গুঁড়া দিয়ে দিন। কিছুক্ষণ নাড়ুন।
  • -তারপর আদা-রশুন বাটা দিয়ে একটু ভেজে নিয়ে জিরা আর ধনে গুঁড়া দিয়ে দিন। চুলার আঁচ কমিয়ে কিছুক্ষণ ভাজুন।
  • -তারপর ছোট করে কেটে রাখা মাংস আর লবণ দিয়ে ভাল করে কষান। মাংসের গায়ের পানি না শুকানো পর্যন্ত কষান। কষানো হয়ে গেলে অল্প করে গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিন। পানি কমে গেলে আরো একবার কষিয়ে নিন।
  • -তারপর প্রয়োজন মত গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিন মাংস সেদ্ধ হবার জন্য। মাংস সেদ্ধ হয়ে পানি (ঝোল) শুকিয়ে এলে পালং শাক, আস্ত কাঁচা মরিচ আর গরম মশলার গুঁড়া মাংসে দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন।
  • -শাক দেওয়ার পর বেশিক্ষণ চুলায় রাখবেন না। তাহলে রঙ নষ্ট হয়ে যাবে। মাংসের উপরে তেল উঠে এলেই নামিয়ে নিন। গরম গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন।

Share This Post

Post Comment