যে কারনে খাওয়ার পরিমান কমিয়েও ওজন কমছে না?

যে কারনে খাওয়ার পরিমান কমিয়েও ওজন কমছে না?

স্বাস্থ্যকর খাবার বাছাই করে পরিমিত মাত্রায় খাওয়ার পরেও অনেকের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হয় না। এ ক্ষেত্রে মূল কারণ হিসেবে গবেষকরা সঠিক খাবার বাছাইয়ের সমস্যা উল্লেখ করেছেন। নানা কারণে একই খাবার বিভিন্ন মানুষের ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।

একজন মানুষের জন্য যে খাবার উপযুক্ত তা অন্য মানুষের উপযুক্ত নাও হতে পারে। আর এ কারণে ডায়েটিংয়ের কোনো একটি পরামর্শ অন্য মানুষের জন্য উপযুক্ত নাও হতে পারে। এর উদাহরণ হিসেবে গবেষকরা জানিয়েছেন, ডায়াবেটিস আক্রান্ত এক নারীর রক্তের শর্করার পরিমাণ পরিবর্তিত হয় টমেটো খাওয়ার কারণে। কিন্তু এটি স্বাভাবিকভাবে একটি কম ফ্যাটযুক্ত পুষ্টিকর খাবার হিসেবে পরিচিত।

এ গবেষণার জন্য মোট ৮০০ মানুষের ওপর সমীক্ষা চালানো হয়। গবেষকরা অংশগ্রহণকারীদের রক্তের শর্করার মাত্রা পর্যবেক্ষণ করেন। অংশগ্রহণকারীদের কারো ডায়াবেটিস ছিল না। কিন্তু তাদের কয়েকজন মাত্রাতিরিক্ত ওজনের ছিলেন।

প্রতি পাঁচ মিনিট পর পর এক সপ্তাহ ধরে টানা এ পরীক্ষা করা হয়। এ সময় তাদের বিভিন্ন খাবারের প্রতিক্রিয়া লিপিবদ্ধ করা হয়। এ ছাড়া তাদের মল থেকে জীবাণুর মাত্রাও পর্যবেক্ষণ করা হয়।

গবেষকদের একজন ওয়েইজম্যান ইন্সটিটিউট অব সায়েন্সের ইরান সেগাল। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে এটা খুবই আশ্চর্যজনক ছিল যে, একটি খাবার বিভিন্ন জনের কাছে বিভিন্ন রকম প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়।’

গবেষকরা জানান, কোনো মানুষের আইসক্রিম খাওয়ার পরে রক্তের শর্করার মাত্রা পরিবর্তিত হয়। অনেকের আবার সুসি খাওয়ার পরেও অনুরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা যায়।
গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে সেল প্রেস জার্নালে।

Share This Post

Post Comment