বন্ধুত্বের১৮বছর পর হঠাৎ দেখা

বন্ধুত্বের১৮বছর পর হঠাৎ দেখা

হঠাৎ দেখা হলো দু’জনে। দুই বন্ধুতে। সম্পর্কের ১৮ বছর পর, প্রথমবারের মত দেখা হল নিউইয়র্কের তরুণী নিকোল আর টেক্সাসের পৌঁঢ় নরম্যানের মধ্যে। দুজনের বয়সের ব্যবধান ৫০ বছর। তাতে কি? বন্ধুত্ব কি বয়স মানে? কিংবা জাতি-বর্ণ-ধর্ম?

নরম্যান জানান, তাদের বন্ধুত্বের শুরু ১৯৯৬ সালে। সেসময় রচেস্টারের একটি স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য পত্র বন্ধু চেয়ে ‘ভিক্টোরিয়া এডভোকেটে’ লেখা একটি সম্পাদকীয়তে চোখ যায় ৬১ বছর বয়সী নরম্যানের। স্কুল শিক্ষার্থীদের কাছে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যকে পরিচিত করে তোলাই ছিল সে প্রকল্পের উদ্দেশ্য। নরম্যান জানান, “ আমি লিখতে পছন্দ করি, তাই সুযোগটা হাতছাড়া করতে চাইনি।” আর সে থেকেই শুরু ১১ বছর বয়সী নিকোলের সঙ্গে তাঁর বন্ধুত্ব। এরপর থেকে চিঠির মাধ্যমে নিয়মিত যোগাযোগ হতে থাকে নরম্যান আর নিকোলের মধ্যে। দুজনের মধ্যে কেবল চিঠিই নয়; আদানপ্রদান হয়েছে কার্ড, ছবি আর কবিতাও। মাঝে মাঝেই আকস্মিক উপহার পাঠিয়ে পরস্পরকে চমকে দিতেন তারা।

j

এভাবে কেটে যায় ১৮টি বছর। সময়ের ব্যবধান কিন্তু বিভাজিত করতে পারেনি দুজনকে। রয়ে গেছে অব্যাহত যোগাযোগ । কিন্তু প্রিয় মানুষকে নিজের চোখে দেখার বাসনা তো মানুষের প্রাকৃতিক বাসনা। সহজাত সম্মিলনের টানেই অবশেষে সামনাসামনি দেখা করার সিদ্ধান্ত নিলেন দুজন। নিকোল আসবেন নরম্যানের সঙ্গে দেখা করতে। আর এ খবরে আনন্দে আত্মহারা হয়ে উঠলেন নরম্যান।

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর শেষ পর্যন্ত আসলো সেই মাহেন্দ্র ক্ষণ। একদিন মা-বাবার সঙ্গে ভাড়া করা একটি গাড়িতে চেপে নরম্যানের বাড়িতে হাজির হলেন নিকোল। জড়িয়ে ধরলেন একে অপরকে। সেসময় গাল বেয়ে অশ্রু গড়িয়ে পড়ে নিকোলের। বিজয়ীর সুরে তিনি বলে ওঠেন, “আমরা পেরেছি।” অশ্রু চেপে রাখতে পারেননি নরম্যানও। দুজনে গল্প করেন অনেকক্ষণ। নরম্যানের সঙ্গে ছবি তোলেন নিকোল আর তার মা-বাবা। শেষ পর্যন্ত বিদায়ও নিলেন তারা।

d

যদিও নরম্যান পারকিন্সন্স রোগে ভুগতে থাকায় চিঠিপত্র আদান-প্রদান কমে গেছে দুজনের মধ্যে, তারপরও বন্ধনটাই এমন যেন তা কোনদিন ভাঙ্গার নয়। বর্তমানে নিকোল একজন স্কুল শিক্ষক। আর তাকে পালিতা নাতনী বলেই মনে করেন নরম্যান।

Share This Post

Post Comment