ওজন কমাতে চাইলে ডায়েটিং এর আগে মেনে চলুন নিয়ম

ওজন কমাতে চাইলে ডায়েটিং এর আগে মেনে চলুন নিয়ম

অতিরিক্ত ওজন নিয়ে সবাই চিন্তিত থাকেন। সেই ওজন কমাতে বিভিন্ন পদ্ধতিও অনেকে অনুসরণ করেন। তবে ওজন কমানোর কাজটা সবাই আসলে যতটা সহ্জ ভাবেন ঠিক ততটা সহ্জ নয়। কারণ অনেক ধরণের ব্যাপার থাকে যেগুলো ওজন কমাতে গেলে অনুসরণ করতে হয়। আর অনেকেই ভাবেন একজনের যে ডায়েট চার্টে কাজ হয়েছে হয়তো অন্যদেরও সেই একই চার্টে কাজ হবে। আসলে ঠিক তা নয়। সবার শরীরের অবস্থা এক নয়। তাই ওজন কমাতে প্রথমেই যে কাজটি করতে হবে তা হলো নিজের শরীরকে বুঝতে হবে। আর লক্ষ্য স্থির করতে হবে ওজন কমাতে কোথায় কোথায় আপনার নজর দিতে হবে। যদি কম সময়ের মাঝে ওজন কমাতে চান তাহলে এই দুইটি দিক অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।
অনেকেই কম সময়ে ওজন কমাতে চান তবে সেক্ষেত্রে অনেক কিছুই বিসর্জন দেয়ার মনোভাব রাখতে হবে এবং সেই সাথে আপনার করণীয় তালিকার সবচেয়ে সেগুলো উপরে থাকতে হবে। এখানে ডায়েটিং এর কিছু নিয়ম জানানো হচ্ছে যা ওজন কমাতে অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে। তবে নিয়মগুলো কঠিন নয় এবং খুব বেশি সময়ও নষ্ট করে না। এই নিয়ম গুলো মানার পাশাপাশি একটি সহজ খাবার তালিকা অনুসরণ করুন।
তাই সময় নষ্ট না করে নিয়মগুলো জেনে নিন এবং ওজন কমানোর লক্ষ্যে কাজ শুরু করে দিন-

সংখ্যা ঠিক করুন
লক্ষ্য ঠিক করুন এবং ঠিক কত ওজনে যেতে চান তা ঠিক করুন। ওজন কমাতে শুরু করার এটাই নিয়ম এবং প্রথম ধাপ।

খাবার তালিকা ঠিক করা
ওজন কমাতে একটি সহজ খাবার তালিকা বাছাই করুন। প্রয়োজনে অভিজ্ঞ পুষ্টিবিদের পরামর্শ নিন। এটি আপনার স্থির লক্ষ্যে পৌছাতে সাহায্য করবে।

সুস্থ থাকার পরিকল্পনা করতে হবে
যে ধরনের খাবার তালিকাই অনুসরণ করেন না কেন সেটা যেন স্বাস্থ্যকর হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন। খাবার তালিকায় রাখুব প্রচুর ফল ও সবজি রাখুন যা ওজন কমাতে সাহায্য করবে এবং প্রয়োজনীয় শক্তিও সরবরাহ করবে।

দীর্ঘমেয়াদী চিন্তা করুন
ডায়েটিং শুরু করার আগে একটি নিয়ম অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে যে কখনোই হতাশ হওয়া যাবে না। আর কম সময়ে ওজন কমানোর পরে চেষ্টা করতে হবে সেটা ধরে রাখতে। হারানো ওজন যেন ফিরে না আসে তার একটা দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা রাখতে হবে।

খাবার তালিকা বাছাই করুন
যে খাবার তালিকাটি অনুসরণ করবেন সেটা নিয়ে পরিকল্পনা করুন, যাচাই বাছাই করুন। সেটি আসলেই আপনার শরীরে কাজ করবে কিনা এবং আপনার জন্য উপযুক্ত কিনা। খাবার তালিকায় কি খাবার আছে সেটাও যাচাই করে দেখুন।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ গ্রহণ
ওজন কমানোর পরিকল্পনা করতে আগে ডাক্তারের কাছ থেকে শারীরিক অবস্থা পরীক্ষা করে নিলে ভালো হয়। কারন ডাক্তার আপনার অবস্থা পরিষ্কার ভাবে জানাতে পারবে এবং আপনার শরীরের জন্য কোনটা ভাল হয় সেটাও জানাতে পারবে। এছাড়া পরামর্শ নিন একজন অভিজ্ঞ পুষ্টিবিদের। তিনি আপনাকে কি ধরনের ডায়েট অনুসরণ করলে ভালো ফল পাবেন তা বলে দিতে পারবে এবং শারীরিক অবস্থা বুঝে তালিকা তৈরি ও কোন খাবার রাখা যাবে আর কোনটি রাখা যাবে না তা ঠিক করে দিতে পারবে।

খাবার পরিমাণ সম্পর্কে জানুন
অনেকেই জানেন না যে ওজন কমাতে কতটুকু খাবার খেতে খেতে হবে। কোন খাবার বেশি, কোনটা কম খাবে এবং ৩ বার না ৫ বার খাবার খাবেন। তবে ওজন কমাতে সবচেয়ে ভালো হয় যদি সারাদিনের খাবার ৬ ভাগে ভাগ করে খাওয়া হয়।

বদভ্যাস থেকে দূরে থাকুন
ওজন কমাতে মনস্থির করার পর পরই সব ধরনের বদভ্যাসগুলো বাদ দিতে হবে। ধূমপান ও মদ্যপানের অভ্যাস থাকলে তা ছেড়ে দিতে হবে। কারণ এগুলো আপনার ওজন কমাতে মোটেও সাহায্য করবে না। এগুলো অন্য আরো স্বাস্থ্য সমস্যা তৈরি করে শরীরকে অসুস্থ করে দেবে।

অবশ্যই ব্যায়াম করতে হবে
ওজন কমাতে চাইলে অবশ্যই ব্যায়াম করতে হবে। কারণ খাবার যতোই নিয়ন্ত্রণ করা হোক না কেন ব্যায়াম না করলে ওজন সঠিক ভাবে কমে না বা কমলেও সেটা স্থায়ী হয়না। কারন স্বাস্থ্যকর খাবার তালিকা এবং সঠিক ব্যায়ামের মাধ্যমেই দ্রুত ওজন কমানো সম্ভব।

পরিবারের সদস্যদের অবহিত করুন
ওজন কমানো সহজ কাজ নয়। এজন্য প্রয়োজন কষ্ট করা এবং প্রচণ্ড মানসিক জোর। ওজন কমাতে মনস্থির করে তা পরিবারের সদস্যদের অবহিত করুন। মানসিক শক্তি ও সহযোগিতার জন্য তাদেরকে আপনার প্রয়োজন রয়েছে। সেই সাথে এটাও গুরুত্বপূর্ণ যে তারাও আপনার ওজন কমানোর পরিকল্পনা সম্পর্কে সজাগ থাকবে।

Share This Post

Post Comment