এ্যানিমেশন ও মাল্টিমিডিয়া শিখে জীবন বদলে দিন, হয়ে উঠুন একজন সফল এ্যানিমেটর।

এ্যানিমেশন ও মাল্টিমিডিয়া শিখে জীবন বদলে দিন, হয়ে উঠুন একজন সফল এ্যানিমেটর।

বর্তমানে দেশে সম্প্রচারিত টিভি চ্যানেল এর সংখ্যা ২৫-৩০ টি এবং নতুন অনুমোদন পেয়েছে আরো ১১টি, এর সাথে প্রায় ৬০০টি রিয়েল এষ্টেট কোম্পানী সহ ঢাকা ও বড় শহর গুলোতে রয়েছে অসংখ্য মাল্টিমিডিয়া প্রোডাকশন হাউজ। এই সকল টিভি চ্যানেল ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে প্রয়োজন রয়েছে আর্কিটেক্চারাল ভিজ্যুয়ালাইজেশন, এ্যানিমেশন ও ইন্টেরিয়র ডিজাইন জানা প্রচুর দক্ষ জনবলের। আর দক্ষ জনবল তৈরিতে কাজ করছে দীপ্তি।

তাই মাল্টিমিডিয়া ও ভিজ্যুয়াল এনিমেশন সেক্টর এর উত্তরোত্তর চাহিদা বৃদ্ধির কারনে কর্মপযোগী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ প্রফেশনাল তৈরি করার লক্ষ্যেই দীপ্তি প্রণয়ন করেছে নিম্নলিখিত প্রফেশনাল কোর্স সমূহ। প্রতি বছর ৪ টি সেশনে (মার্চ, জুন, সেপ্টেম্বর, ডিসেম্বর ) এবং ৩টি শিফটে (সকাল /বিকাল/সান্ধ্যকালিন) এই ডিপ্লোমা প্রোগ্রাম সমূহে ভর্তি নেওয়া হয়। কোর্সগুলি হলো: ডিপ্লোমা-ইন-আর্কিটেক্সারাল ভিজ্যুয়ালাইজেশন, ডিপ্লোমা -ইন-থ্রীডি এ্যানিমেশন এন্ড ভিজ্যুয়াল এফ/এক্স এবং ডিপ্লোমা -ইন ইন্টেরিয়র ডিজাইন।

এছাড়াও রয়েছে ৩-৬ মাস মেয়াদী থ্রীডি ম্যাক্স, মায়া, মাল্টিমিডিয়া, ম্যাক্রোমিডিয়া ফ্লাস, ভিডিও এডিটিং, অটোক্যাড, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ইন্টেরিয়র ডিজাইন, অ্যাপারেল মার্চেন্ডাইজিং, কম্পিউটার প্রোগ্রামিং, ডাটাবেজ প্রোগ্রামিং, কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশন, প্রফেশনাল আউটসোর্সিং অন গ্রাফিক্স/ এনিমেশন/ গেম ডিজাইন এর উপর সার্টিফিকেট কোর্স। উক্ত কোর্সগুলি সম্পূর্ণ ভাবে ব্যবহারিক ক্লাস ভিত্তিক যা সার্টিফাইড প্রফেশনাল প্রশিক্ষকদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়ে থাকে।

কোর্সগুলির অন্য একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে কোর্স শেষে বাধ্যতামুলক রিয়েললাইফ প্রজেক্ট ওয়ার্ক ও ১-৩ মাস মেয়াদী ইন্টার্ণশীপ যা একজন শিক্ষার্থীকে হাতে কলমে কাজ শিখতে সাহায্য করে । এছাড়াও রয়েছে প্রশিক্ষকদের সার্বক্ষনিক ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোর্স সমাপ্তি, পরীক্ষা গ্রহণ ও ফলাফল মূল্যায়নের নিশ্চয়তা। নিয়মিত থিওরী ক্লাস এর সাথে পর্যাপ্ত প্রাকটিক্যাল ক্লাস ও কঠোর ভাবে মান নিয়ন্ত্রনের কারনে এখান থেকে পাশকৃত ছাত্র/ছাত্রীবৃন্দের কর্মজীবনে সফলতার হার শতভাগ। এখান থেকে পাশকৃত ছাত্র/ছাত্রীরা ইউনিভার্সিটি এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এলাইন্স, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও দীপ্তি কর্তৃক যৌথ সনদ লাভ করে থাকে। এছাড়াও রয়েছে নিজস্ব জব পোর্টাল এর মাধ্যমে চাকুরির সহায়তা।

গ্রাফিক্স/ এনিমেশন/ গেম ডিজাইন করে আউটসোর্সিং করার সুযোগঃ

অনলাইন শ্রমবাজারে কর্মীর চাহিদা বাড়ছে ক্রমশ । বর্তমান সময়ে দিন দিন বাড়ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন এর চাহিদা। কম্পিউটার গ্রাফিক ডিজাইনিং বিষয়ে বাংলাদেশে রয়েছে চাকরির বিশাল বাজার। সরকারি-বেসরকারি দুটি ক্ষেত্রেই এই পেশার রয়েছে প্রচুর চাহিদা। দেশে বিদেশে বা দেশী বিদেশী সরকারী বেসরারী প্রতিষ্ঠান গুলোতে তাদের প্রচার কাজে গতি আনতে গ্রাফিক্স ডিজাইনার নিয়োগ দিচ্ছে।

সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজের সুযোগের পাশাপাশি বেসরকারি পর্যায়ে স্থাপিত দেশী-বিদেশি ডিজাইনিং, শিল্প কারখানা, বিজ্ঞাপনি প্রতিষ্ঠান মিল, ব্যাংক, ফ্যাশন হাউস, রিয়েল এস্টেট, গার্মেন্টস শিল্প, টেক্সটাইল প্রভৃতি ইন্ডাস্ট্রিতে সরাসরি সম্পৃক্ত হয়ে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। মূলত গ্রাফিক ডিজাইনিং ছোট-বড় সব ধরনের প্রতিষ্ঠানের পণ্য উৎপাদন কার্যক্রমের অন্যতম প্রক্রিয়া হিসেবে বিবেচিত করা হয়। সবাই চায় নিজের পণ্যের বিজ্ঞাপনটি ডিজাইন করে আরো আকর্ষণীয় করে। শুধু দেশের জন্য নয় বিদেশে দক্ষ গ্রাফিক ডিজাইনার এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। গ্রাফিক ডিজাইন করে প্রতি বছর প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা যায়। শুধু তাই নয় বর্তমানে ইন্টারনেটে গ্রিটিংস কার্ড, টিউনার, ব্যানার ও ওয়েব পেজ ডিজাইন করে ঘরে বসেই প্রচুর টাকা উপার্জন করা সম্ভব।

বর্তমানে ইমেজ এডিটিং কাজে গ্রফিক্স ডিজাইনারের এক ধরনের আকাল চলছে বলা যেতে পারে, বিভিন্ন দেশী বিদেশী কোম্পানী গুলো মাসের পর বিভিন্ন জবপোর্টলে জব-সার্কুলার দিয়ে রাখলেও দক্ষ গ্রাফিক্স ডিজাইনার খুজে পাচ্ছেনা। কারন কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে যে কজন গ্রফিক্স ডিজাইনার বা এই রিলেটেড মানব সম্পদ প্রতিবছর তৈরী হয় তা বর্তমান চাহিদার তুলনায় অনেক কম। বিশেষ করে এখন আউটসোসিং গ্রাফিক্স ডিজাইন বা ইমেজ এডিটিং, ২ডি/৩ডি এনিমেশন, গেম ডিজাইন এ বাংলাদেশ ইউরোপ আমেরিকারও মার্কেট দখল করে নিয়েছে। তাছাড়া নিজে ঘরে বসে কাজ করার পাশাপাশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলারও সুযোগ থাকছে।

DIPTI Student work

কর্মক্ষেত্রঃ  দেশি-বিদেশি ডিজাইন/ মিডিয়া হাউস, টিভি মিডিয়া, রিয়েল এষ্টেট কোম্পানী, আউটসোর্সিং ।

আমাদের শিক্ষার্থীরা যেখানে কর্মরতঃ

দেশের প্রায় প্রতিটি টিভি মিডিয়া, দেশি-বিদেশি ডিজাইন/ মিডিয়া কোম্পানী, রিয়েল এষ্টেট কোম্পানীতে আমাদের শিক্ষার্থীরা কর্মরত আছেন। অনেক শিক্ষার্থী স্ব-উদ্যোগে কর্মক্ষেত্র সৃষ্টি করেছে আবার কেউবা হয়েছেন ফ্রীল্যান্স আউটসোর্সিং এর দেশ সেরা খ্যাতিমান।

Share This Post

Post Comment