স্মৃতিশক্তি বাড়াতে প্রয়োজনীয় খাবার

স্মৃতিশক্তি বাড়াতে প্রয়োজনীয় খাবার

শরীরের সব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের মধ্যে হৃদপিণ্ড ও মস্তিষ্ক হল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ভেজালের এই বাজারে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ দুটি অংশই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সৌখিন জীবনের অপরিহার্য অংশ প্যাকেটজাত খাবারও আপনার ক্ষতির বড় কারণ। মাত্র পঞ্চাশোর্দ্ধো মানুষের মাঝেও দেখা দিচ্ছে হার্টের অসুখ ও স্মৃতি ভ্রমের সমস্যা। কমবয়সী ছেলেমেয়েরাও দুর্বল স্মৃতিশক্তি, স্মৃতিভ্রমের অসুখে ভুগছে। এসব সমস্যা থেকে নিজেকে বাঁচাতে হাতে তুলে নিন এমন কিছু খাবার যা আপনার শরীরকে সুস্থ রাখবে আবার স্মৃতিশক্তিও বাড়াবে। তাই খেতে পারেন-

পেস্তা বাদাম

পেস্তা বাদামে রয়েছে ভিটামিন বি-১ যা হার্ট ও মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। স্মৃতিশক্তি ও মনোযোগের সময়ও বাড়িয়ে দেয় পেস্তা বাদামের মধ্যে থাকা উপাদান। রক্তকে শোধিত করে হার্টকে ভালো রাখতেও সাহায্য করে এই বাদাম।

বাদাম

বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস, ভিটামিন বি-৬, ভিটামিন-ই ও ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। এটি মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়ায়, কোলেস্টোরলের মাত্রা কমায় ও হার্টকে সুস্থ রাখে।

আখরোট

আখরোটে পাবেন প্রচুর পরিমাণে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ভিটামিন-ই। আখরোট খেলে শিরার ভেতর জমে থাকা দূষিত পদার্থ সরে গিয়ে স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাকের প্রবণতা কমে।

গম

গমে রয়েছে ভিটামিন-ই ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস যা মস্তিষ্কের ক্ষয় প্রশমন করে ও হার্টকে ভালো রাখে। এর মধ্যে থাকা ফাইবার রক্ত থেকে ক্ষতিকারক কোলেস্ট্রেরল কমিয়ে দেয়।

আভোকাডো

আভোকাডো আমাদের দেশে সম্পূর্ণ নতুন একটি ফল। বিদেশি ফল হলেও এর বর্তমান প্রাপ্তি বেশ সুলভ বটে। এই ফল খেলে হার্ট ও মস্তিষ্ক, দুটিরই উপকার করে। মস্তিষ্কে রক্ত সঞ্চালন ঠিক রেখে তা তীক্ষ্ণ করে তোলে।

আমলকি

আমলকিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস। ভিটামিন-সি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এছাড়া হার্ট ও মস্তিষ্কে রক্ত সঞ্চালন ঠিক রাখে।

পেঁয়াজ

এটি আমরা প্রায় সকলেই রোজ খাবারের সঙ্গে রান্না করে বা কাঁচা খেয়ে থাকি। পেঁয়াজ হার্ট ও মস্তিষ্কে রক্ত সঞ্চালনকে বাড়িয়ে দেয়।

কালোজিরা

কালোজিরাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস যা হার্ট বা মস্তিষ্ককে ক্ষতির হাত থেকে বাঁচায়। উচ্চ রক্তচাপ কমাতে, মনোযোগ বাড়াতে কালোজিরা সাহায্য করে।

কালোজাম

কালোজামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস যা প্রবল ক্ষতির হাত থেকে হার্ট ও মস্তিষ্ককে বাঁচায়। একইসঙ্গে হার্টে রক্ত সঞ্চালনও বাড়িয়ে দেয় এই ফলটি।

মাছ

বিভিন্ন মাছে রয়েছে প্রোটিন ও ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড যা হার্ট, মস্তিষ্ক সবেরই ক্ষতি রোধ করে।

লাল আপেল

আপেলের খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস। এছাড়া এতে রয়েছে এমন উপাদান যা মস্তিষ্ককে ক্ষুরধার করার পাশাপাশি হৃদরোগের সম্ভাবনা কমায়।

কুমড়োর বীজ

কুমড়ো যেমন উপকারী তেমনই এর বীজে রয়েছে নানা খনিজ ও ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড যা কোলেস্ট্রেরলের মাত্রা কমায় কমায় ও মস্তিষ্ককে ক্ষুরধার করে তোলে।

মধু

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত উপকারিতায় কোনও খাবার সম্ভবত মধুকে টেক্কা দিতে পারবে না। সব রোগের নিরাময় করতে মধু প্রয়োজন হয়। এতে রয়েছে নানা ধরনের ভিটামিন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস, পটাশিয়াম, ফসফরাস, ম্য়াগনেশিয়াম ইত্যাদি। ফলে হার্ট ও মস্তিষ্কের জন্যও মধু একইরকম প্রয়োজনীয়।

খেঁজুর

খেঁজুরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফসফরাস ও অন্যান্য উপকারী উপাদান যা মস্তিষ্ককে ক্ষুরধার করে ও হৃদরোগের রোগের আশঙ্কা কমায়। বীট হার্ট ও মস্তিষ্কে রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে তোলে বীট। একইসঙ্গে রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রাও বাড়িয়ে তোলে এই সবজি।

Share This Post

Post Comment