নতুন প্রযুক্তির কম্পিউটার

নতুন প্রযুক্তির কম্পিউটার
নতুন প্রযুক্তির কম্পিউটার
নতুন প্রযুক্তির কম্পিউটার

যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব উটাহ এর একদল কম্পিউটার বিজ্ঞানী রীতিমত তাক লাগানো আবিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন। সুপার কম্পিউটারের তথ্য প্রক্রিয়ার গতি কয়েক হাজার গুণ বেড়ে যাবে, এমন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন তারা।

 বর্তমান কম্পিউটার যেকোনো তথ্য প্রক্রিয়া করে ইলেক্ট্রন ব্যবহার করে, এই ইলেক্ট্রন আবার পরিবহন করা হয় তারের সাহায্যে। তবে বিজ্ঞানীরা তথ্য পরিবহনের জন্য অতিসূক্ষ্ণ রশ্মি বিভাজক (বিমসস্প্লিটার) তৈরি করেছেন যা তথ্য পরিবহন ও প্রক্রিয়াকরণের জন্য ফোটন ব্যবহার করে।

এই পরিবাহীটি চুলের চেয়ে ৫০ গুণ পাতলা। ফলে ছোট আকারের একটি কম্পিউটার চিপসে কয়েক মিলিয়ন বিমসস্প্লিটার সংযুক্ত করা যাবে।

কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক রাজেশ মেনন বিষয়টি ন্যাচার ফটোট্রনিক্স সাময়িকীতে ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে: বস্তু জগতে আলোর গতি সর্বাধিক এবং এটি ধ্রুবক। সুতরাং আলোর চেয়ে বেশি গতিতে তথ্য পরিবহন আর অন্য কোনো উপায়ে সম্ভব নয়।

বর্তমানে আলোর সাহায্যে তথ্য পরিবহন করা গেলেও তা কম্পিউটারে প্রক্রিয়া করার সময় ইলেক্ট্রনে রূপান্তরিত করতে হয়। ফলে গতি কমে যায়। সুতরাং এ প্রক্রিয়া আরো গতিশীল করতে হলে আলোর কাছেই যেতে হবে।

এখন কম্পিউটার চিপে বিমসস্প্লিটার ব্যবহার করলে ওই সমস্যা আর থাকবে না। ফলে কম্পিউটারের গতি বাড়বে কয়েক হাজার গুণ। বিজ্ঞানী রাজেশ বলছেন, এমন প্রযুক্তি সম্বলিত সুপার কম্পিউটার পেতে আরো বছর তিনেক অপেক্ষা করতে হবে।

Share This Post

Post Comment