কলিজার তাওয়া ফ্রাই: যে রেসিপিটি আপনি এখনো জানেন না””

কলিজার তাওয়া ফ্রাই: যে রেসিপিটি আপনি এখনো জানেন না””

রেসিপিটি জানেন না কেন বললাম? কারণ এই রেসিপিটি একটু ভিন্ন স্বাদের, আমি এই রেসিপিটিকে নিজের মত করে তৈরি করেছি। অনেকটা তাওয়া ফ্রাই স্টাইলে তৈরি করা, তবে মশলায় আছে একটুখানি বৈচিত্র্য আর সাথে আছে একটুখানি টুইস্ট। যেহেতু উচ্চ তাপে তাওয়ায় রান্না করা হবে খাবারটি, তাই একে আমরা কলিজার তাওয়া ফ্রাই বলতে পারি। চলুন, আজকে জেনে নিই ভিন্ন স্টাইলের কলিজার তাওয়া ফ্রাই করার রেসিপি!

উপকরণ

যে কোন কলিজা- ২৫০ গ্রাম
পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ
আদা ও রসুন বাটা- ১ টেবিল চামচের একটু কম করে
কাশ্মীরি মরিচ গুঁড়ো- স্বাদ অনুযায়ী
হলুদ- সামান্য
ধনে গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
লবণ স্বাদ অনুযায়ী
ফ্রেশ গরম মসলা গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
ফ্রেশ জায়ফল ও জয়ত্রী- ১ চিমটি করে
পেঁয়াজ বেরেস্তা প্রয়োজন মত
ঘি ৩ টেবিল চামচ
কাঁচা মরিচ ও আদার মিহি কুচি স্বাদ অনুযায়ী
তেল প্রয়োজন মত
সাদা গোলমরিচ গুঁড়ো- ১/৪ চা চামচ
টমেটো ও পিঁয়াজ কুচি ইচ্ছা
ধনিয়া পাতা ইচ্ছা

প্রণালি

-কলিজাকে সামান্য হলুদ ও সামান্য আদা রসুন দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। মুরগীর কলিজা হলে সিদ্ধ না করলেও চলবে। বেশী সিদ্ধ করবেন না। এতে কলিজা শক্ত হয়ে যাবে।
-কলিজা সিদ্ধ করে নিন। এবার পছন্দ অনুযায়ী টুকরো করে নিন। এবার পিঁয়াজ, রসুন, আদা, লবণ, ধনিয়া-হলুদ-মরিচ গুঁড়ো দিয়ে কলিজা মাখিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ।
-একটি বড় তাওয়া বা লোহার ভারী করাইতে তেল গরম করে নিন। এতে খানিকটা কুচানো টমেটো দিয়ে দিন। সামান্য একটু ভেজে কলিজা যোগ করুন। তারপর মাঝারি আঁচে ভাজতে থাকুন। সাথে কিছ বেরেস্তা দিয়ে দিন।
-অর্ধেকটা ভাজা হলে জায়ফল জয়ত্রী গুঁড়ো ছিটিয়ে দিন, গরম মসলা যোগ করুন। সাদা গোল মরিচও দিয়ে দিন। আরও খানিকটা বেরেস্তা দিন।কলিজাকে আমরা একদম ভাজা ভাজা করে ফেলবো।
-কলিজা ৭৫ ভাগ ভাজা হয়ে গেলে টমেটো ও পেঁয়াজের মোটা টুকরো যোগ করুন এবং ভাজতে থাকুন। এখন আঁচ বাড়িয়ে দিন।
-অন্য একটি পাত্রে ঘি গরম করে নিন। এতে আদা কুচি দিয়ে দিন। আদা যখন প্রায় লাল হয়ে আসবে, তখন মরিচ ফালি দিয়ে দিন। মরিচ একটু ভাজা হলেই সম্পূর্ণ মিশ্রণটি ঢেলে দিন কলিজার মাঝে। অনেকটা বাগার দেয়ার মত করে।
-ভালো করে মিশিয়ে দিন। কলিজার উপরে তেল ভেসে উঠলেই ধনে পাতা ছিটিয়ে নামিয়ে নিন। পরিবেশন করুন গরম গরম।

Share This Post

Post Comment