শিখে নিন দুধ ও নারকেল এর কোকোনাট মিল্ক পুডিং তৈরি।

শিখে নিন দুধ ও নারকেল এর কোকোনাট মিল্ক পুডিং তৈরি।

পুডিং টি ২ ভাবে করা যেতে পারে। এগলেস এবং উইথ এগ। ছোট যেই পুডিং টি রয়েছে সেটি এগ ছাড়া।
উপকরন :-
দুধ – ১/২ লিটার
কোকোনাট মিল্ক – ১ কাপ
চিনি – স্বাদ অনুযায়ী
আগারা আগারা – ২ চাচামচ
ডিম – ১ টি

প্রনালি :-
– দুধ জ্বাল দিয়ে ঘন করে নিন । অর্ধেক করবেন ।
– দুধ ঘন হয়ে আসলে কোকোনাট মিল্ক দিয়ে দিন ।
– জ্বাল দিয়ে আরো ঘন করুন ।
– চুলা থেকে নামানোর আগে আগারা আগারা দিয়ে নেরেচেড়ে নিন ।
– ফুটে উঠলে নামিয়ে নিন ।
– গরম ভাব চলে গেলে ডিম ভেঙ্গে ভাল করে মিক্স করে নিন ।
– এবার পছন্দমত শেপের মোল্ডে বাটার ব্রাশ করে মিশ্রন ঢেলে দিন ।
– এবার একটি হাড়িতে পা পাত্রে পানি দিয়ে তার উপরে মোল্ড বসিয়ে দিন ।
– এমন ভাবে পানি দিবেন যাতে পানি মোল্ডের ভিতরে না ঢুকে । মোল্ডের উপরে ঢাকনা দিয়ে দিন ।
– এবার হাড়ির উপরে ঢাকনা দিয়ে ভারি কিছু দিয়ে চাপা দিয়ে দিন ।
– মাঝারি আচে ১৮-২০ মিনিট রাখুন ।
– যখন দেখবেন পুডিং দুধের মত সাদা রংধারন করেছে তখন চুলা থেকে নামিয়ে নিবেন ।
– ঠাণ্ডা করে ফ্রিজে রাখুন । ঠাণ্ডা হলে পরে ছুরি দিয়ে চারদিক ছুটিয়ে নিন ।
-সাভিং ডিশে ঢালার আগে নিচেরদিকে একটু বাড়ী দিয়ে নিবেন যাতে সহজেই বের হয়ে আসে ।
– ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা পরিবেশন করুন দারুন মজাদার কোকোনাট মিল্ক পুডিং ।

কোকোনাট মিল্ক যেভাবে তৈরি করতে হবে :-
গ্রেট করা কোকোনাট – ১ + ১/২ কাপ (১ টি নারিকেল মাঝারি )
পানি বা ১/২ কেজি দুধের থেকে ১/২ কাপ দুধ

– দুধ ও কোকোনাট এক সাথে ব্লেন্ডারে ভাল করে ব্লেন্ড করে নিন ।
– যতটুকু সম্ভব মিহি করে নিন ।
– পাটায় বেটেও মিহি করে নিতে পারেন ।
– এবার পাতলা কাপড় বা ছাঁকনিতে করে চিপে তরল অংশ আলাদা করে নিন ।
– এই তরল অংশকেই কোকোনাট মিল্ক বা নারিকেলের দুধ বলা হয় ।

টিপস :-
* এগ ছাড়া যদি করতে চান তাহলে আগারা আগারা মিক্স করার পরে যে কোন পছন্দ মতো মল্ডে ঢেলে ঠাণ্ডা করে ফ্রিজে রাখুন । ৩-৪ ঘন্টা পরে জমাট বেধে গেলে পরিবেশন করুন ।
* টাটকা নারিকেল দিয়ে দুধ তৈরি করবেন ।কয়েকদিন আগের গ্রেট করা নারিকেল দিয়ে তৈরি করলে পরে দুধের সাথে মিক্স করলে ছানা হয়ে যেতে পারে ।
* এগলেস পুডিং বানালে আগারা আগারা ২ চাচামচের থেকে সামান্য বেশি দিবেন ।

Share This Post

Post Comment