পেপাল, পেওনিয়ার ও আমিরিকানব্যাংক অ্যাকাউন্ট ভেরিফায়।

পেপাল, পেওনিয়ার ও আমিরিকানব্যাংক অ্যাকাউন্ট ভেরিফায়।

আমাদের অনেকেই আছে যাদের পেপাল অ্যাকাউন্ট দরকার হয়। কিন্তু বাংলাদেশ এ পেপাল এখনও অফিসিয়ালভাবে চালু না হয়ায় আমাদের ভেরিফাই করতে অনেক সমস্যায় পরতে হয়। আবার যারা বিভিন্ন ভাবে করে নিচ্ছে একটা সময় তাদের অ্যাকাউন্ট গুলা লিমিট হয়ে যাচ্ছে। আমি আপনাদের অ্যাকাউন্ট যাতে লিমিট না হয় সে জন্য ১০০% নিরাপদ যাতে হয় তার একটা সিস্টেম শেখাব। এ সিস্টেম এর জন্য আপনার যা যা দরকার হবে। তা হ্ল-
আপনার একটা পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। আপনি যদি কার্ড নাও পান অসুবিধা নেই। কথা হ্ল ভেরিফাইড করা থাকলেই হবে। তারপর আপনার ওডেস্ক , পেপাল, মানিবুকারস অ্যাকাউন্ট এর স্ক্রীন শট , জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা পাসপোর্ট এর স্কেন কপি .jpg আকারে থাকতে হবে । যাই হওক আশা করি আপনাদের পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট আগেই করা আছে। যদি থাকে তাহলে এই সিস্টেম ফলো করুন। না থাকলে করে নিন তারপর এই সিস্টেম ফলো করুন। আর কিভাবে অ্যাকাউন্ট করতে হয় আশা কি জানেন। এটা যদি না জানেন তাহলে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট কিভাবে করতে হয় এ সম্পর্কিত অনেক পোস্ট আসে পড়ে অ্যাকাউন্ট করে নিবেন। আর যারা তাও জানেন না বা নিজে নিজে পারবেন না তাহলে পোস্ট এর শেষে যান –

Paypal verified accountsআপনি যে ইমেইল আদ্দ্রেসস দিয়ে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট খুলছিলেন তার মধ্যে পেওনিয়ার থেকে অনেক ইমেইল পাইসেন নিশ্চয় । যাক, এখন আপনাকে একটা মেইল পাঠাতে হবে। যে ইমেইল দিয়ে আপনি পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন সেটা থেকে।
সাবজেক্ট এ লিখুন – Apply for the US Payment Service!
তারপর আপনার ওডেস্ক , পেপাল, মানিবুকারস অ্যাকাউন্ট এর স্ক্রীন শট , জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা পাসপোর্ট এর স্কেন কপি ইমেইল এ ইন্সারট করুন। এবার মেসেজ এ লিখুন যে-
This is inform that i have just active my card but it is not have proper right because by this card i can’t received any kinds of us payment ,So i have some attach file that is informed.
Information:
1.I am freelancer i want to get paid from Odesk
2.Odesk is international marketplace so there have a lot of clients.
Attachment:
1.Paypal Account
2.Skrill Account
3.Passport
After all please active this US Payment Service!.

এবার মেইল টা এই ঠিকানায় পাঠিয়ে দিন –uspaymentservice@payoneer.com
কিছুক্ষন এর মধ্যে একটা রিপ্লায় পাবেন। তারপর কিছু দিন অপেক্ষা করুন। দেখবেন যে এই রকম একটা মেইল আসছে।

এই মেইলেই আপনাকে একটা ইউএসএ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দেওয়া হয়েছে। এখন পেপাল এ গিয়ে Unverified এ ক্লিক করুন Link You Bank Account সিলেক্ট করুন। তারপর Routing নাম্বার এর জায়গায় নাম্বার বসান আর অ্যাকাউন্ট এর জায়গায় আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নাম্বার দেন। পেপাল ৩ দিন পর আপনার অ্যাকাউন্ট এ কিছু সেন্ট পাঠাবে যা আপনার মেইল এ পাবেন অথবা আপনার পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট এ লগিন করে তা জানতে পারবেন। আর ওই আমাউন্ট গুলোর পরিমাণ পেপাল এ বসিয়ে দিন। আপনার পেপাল অ্যাকাউন্ট এখন ভেরিফাইড। তবে একটা কথা আপনার পেপাল অ্যাকাউন্ট ইউএসএ এর ঠিকানায় খুলবেন না কারণ ইউএসএ এর পেপাল অ্যাকাউন্ট ভেরিফাইড করতে গেলে আরও অনেক কিছু করেতে হবে। তবে ইউএসএ এর পেপাল অ্যাকাউন্ট এর দাম অনেক। আমি কিন্তু ইউএসএ এর অ্যাকাউন্ট খুলছি। আরো অনেক জিনিস করতে হয় সময় সল্পতার জন্য লিখতে পারলাম না। জানার ইচ্ছা থাকলে আমার কাছ থেকে জেনে নিয়েন।
এবার যারা এ সবের কিছুই পারবেন না বা অলসদের জন্য।
আপনাদের জন্য আমি সব করে দিব তাই যা যা লাগবে –
পেওনিয়ার দিয়ে পেপাল ভেরিফাইড এর উপকারঃ
১. আপনার নিজের নামে একটা পেওনিয়ার ডেবিট কার্ড যা আপনি আপনার পেপাল এ যুক্ত করতে পারবেন।
২. আপনার নিজের নামে একটা আমিরিকান ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যেটা কিনা আপনার পেওনিয়ার এর সাথে লিঙ্ক থাকবে (এটা পেওনিয়ার এর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ), এবং এটা দিয়ে আপনি আপনার পেপাল, গুগল আডসেন্স , আমাজন ইত্যাদি ভিরিফাই করতে পারবেন। এবং আপনার এই ব্যাংক এর ঠিকানা পেপাল, গুগল আডসেন্স , আমাজন এ ব্যাবহার করতে পারবেন। এবং এগুলো থেকে এই অ্যাকাউন্ট এ পাঠানো টাকা আপনার পেওনিয়ার কার্ড এ জমা হবে। আপনি চাইলে যে কোন আমিরিকান পেমেন্ট এই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এ নিতে পারেন এবং এই অ্যাকাউন্ট এর সব টাকা সরাসরি আপনার পেওনিয়ার কার্ড এ জমা হবে। যা আপনি বাংলাদেশ থকে তুলতে পারবেন।

১. আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র/ পাসপোর্ট এর কালার স্কেন কপি ( নিজের না থাকলে বাবা অথবা মায়ের)
২. আপনার ঠিকানায় আসে এমন যে কোন বিল এর স্কেন কপি বা আপনার অ্যাড্রেস।
Note:  যেহেতু সব কিছু আমি নিজেই করে দিব তাই আম্নাদের কাছে আমিও কিছু আশা করি।
বিদ্রঃ এটা সহজে করার মতো কোন টিপস আসলে নেই তবে যাও আসে তাতে কমপক্ষে ১০$ লাগে। অনেকের এটা দরকার হয় এবং অনেকেই ভেরিফাই করতে পারে না। শুধু মাত্র তাদের সাহায্যের জন্য এই টিউন।
আসলে মনে করে ছিলাম Paypal ভেরিফাই না জানে কত কঠিন, কিন্তু আস্লেই অনেক সোজা । আরো অনেক সিস্টেম রয়েছে যা দিয়ে আমি ৪টা অ্যাকাউন্ট ভেরিফাই করেছি।

Share This Post

Post Comment