তিক্ততা ভুলে দাম্পত্যকে চটজলদি মধুর করে তুলতে জেনে নিন ১০টি বিষয়

তিক্ততা ভুলে দাম্পত্যকে চটজলদি মধুর করে তুলতে জেনে নিন ১০টি বিষয়

দাম্পত্যে একটু-আধটু ঝগড়া কিংবা সমস্যা হওয়া খুবই স্বাভাবিক। বরং না হলেই সেটাকে অস্বাভাবিক বলা যায়। কিন্তু এই একটু ঝগড়া যখন অনেকদিন চলতে থাকে, বলাই বাহুল্য যে সম্পর্কটাও একটু একটু করে তিক্ত হয়ে উঠতে থাকে। আজকাল দাম্পত্য একঘেয়ে লাগে, কিংবা কোন বিষয় নিয়ে তিক্ততা কাজ করছে দুজনের মাঝে? কিংবা মনে হয় যে জীবনসঙ্গীর সাথে দূরত্ব বাড়ছে? তাহলে এই ১০টি টিপস আপনার জন্যই। জেনে নিন কীভাবে চটজলদি দাম্পত্যকে মধুর করে তুলবেন।

indian-portraits-engagement-bride-groom
তিক্ততা ভুলে দাম্পত্যকে চটজলদি মধুর করে তুলতে জেনে নিন ১০টি বিষয়

রোমান্স করতে ভুলবেন না

রাগ করে জীবনসঙ্গীর থেকে মুখ ফিরিয়ে রাখবেন না। রোমান্স করুন, ভালোবাসা প্রকাশ করুন, তাঁকে জানতে দিন যে তাঁর কতটা পরোয়া আপনি করেন।

ফোনটাকে বন্ধ রাখুন

আপনার ফোনটাকে বন্ধই রাখুন নিজেদের একান্ত সময়ে। মনে ফেসবুক হোক বা বন্ধুর সাথে আড্ডা, অফিসের কল হোক বা জরুরী কাজ- দিনের কিছু সময় এই যন্ত্রটাকে দূরেই রাখুন নিজের কাছ থেকে। জীবনসঙ্গীকে সময় দিন।

একই সময়ে ঘুমোতে যান

চেষ্টা করুন শত ব্যস্ততা সত্ত্বেও একইসাথে বিছানায় যেতে। এতে দাম্পত্য মধুর থাকে সেটা পরীক্ষিত সত্য।

চা পানের মিষ্টি রোমান্স

সকালে হোক বা সন্ধ্যায়, পাশাপাশি একসাথে বসে চা/কফি পানের পর্ব সারুন। হয়তো বারান্দায়, কিংবা বসার ঘরে সুন্দর করে আয়োজন করুন। ফাঁকে সেরে নিন সংসারের আলাপ।

অতীতের সুন্দর কথা একত্রে মনে করুন

নিজেদের পুরনো ছবি অ্যালবাম, স্মৃতি বিজড়িত এটা-সেটা নিয়ে প্রায়ই আড্ডা জমান। সুন্দর সময়ের রোমন্থন করুন, সম্পর্ক মিষ্টি লাগবে।

একসাথে স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে উঠুন

যেসব দম্পতিরা একি সময়ে স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে থাকেন, একি সাথে ব্যায়াম করে তাঁদের সম্পর্ক বেশী আন্তরিক হয়ে থাকে। সকালে একটু মর্নিং ওয়াক মন্দ কিছু নউ।

যৌনতা নিয়ে একটু অ্যাডভেঞ্চার

যৌনতাকে প্রশ্রয় দিন। সুন্দর যৌন সম্পর্ক অনেক সমস্যারই সমাধান। যৌন সম্পর্কে নতুন কিছু করুন, সঙ্গীকে খুশি রাখুন।

মিষ্টি আদর

যৌনতার বাইরেও ভালোবাসা আছে। আলিঙ্গন, হাতে হাত রাখা, সকলে একটা মিষ্টি চুমু ইত্যাদি যে সম্পর্ক থেকে কখনো হারিয়ে না যায় খেয়াল রাখবেন।

নতুন কিছু বলুন

রোজ রোজ সেই একঘেয়ে সংসারের প্যাচাল আর খিটমিট? নতুন কিছু বলুন, নতুন বিছয় নিয়ে কথোপকথন চালান। সম্পর্ক নতুন হয়ে উঠবে।

ধন্যবাদ তো অবশ্যই

নিজের প্রিয় মানুষটিকে ধন্যবাদ দিয়েছেন কি? ধন্যবাদ দিন, তাঁর সেই প্রতিটি কাজের জন্য যা তিনি করেন আপনার খাতিরে।

Share This Post

Post Comment