ফ্যাশনেবল সানগ্লাস

ফ্যাশনেবল সানগ্লাস

গরমে সুর্যের তাপ, ধূলোবালি থেকে যতই দূরে থাকতে চান না কেন, ঘুরে-ফিরে আপনার কাছে আসবেই। ত্বকে সানস্ক্রিন বা লোশন লাগিয়ে রক্ষা পেলেও চোখের নিরাপত্তার জন্য সানগ্লাসের কোনই বিকল্প নেই।

তাছাড়া বয়স বাড়ার সঙ্গে চোখের দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়া ছাড়াও নানান ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। আর এগুলোর সম্ভাবনা কমিয়ে আনার জন্য সানগ্লাস ব্যবহার করা দরকার।

হারভার্ড মেডিকেল স্কুলের অফথ্যমোলজির অধ্যাপক লুই পাসকোয়ালে বলেন, “সাধারণত ঘরের বাইরে থাকার ফলে সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি সরাসরি চোখের ক্ষতি করতে পারে। আর তাই ইউভি রশ্মি আটকাতে পারে এমন চশমা পরা উচিত। তাহলে বয়স বাড়লেও চোখের সমস্যা কম হবে।”

সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি যা আমাদের চোখের কর্ণিয়া এবং রেটিনার ক্ষতি করতে পারে। এ ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মিকে সানগ্লাস আমাদের চোখে পৌঁছতে দেয় না এবং প্রতিহত করে। বেলা ১১ থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সূর্যের আলোর তীব্রতা বেশি থাকে, তাই এ সময় সানগ্লাস ব্যবহার করা উচিত।

যেকোন ফ্যাশনের সানগ্লাস না কিনে আগে অবশ্যই যাচাই-বাছাই করে দেখবেন আপনাকে মানাচ্ছে কি না। গোলগাল চেহারা হলে অবশ্যই সানগ্লাসের গ্লাসটা যেন একটু লম্বাটে ধরনের হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। আবার একটু লম্বাটে চেহারা হলে ডাম্বেল বা মুগুরাকৃতির সানগ্লাসে বেশ ভালো মানাবে। কেনার সময় অবশ্যই খেয়াল রাখবেন, চোখের কোন ঢেকে যায় এমন সানগ্লাসই কিনবেন।সানগ্লাস ব্যবহারের ক্ষেত্রে মেনে চলুন কিছু নিয়ম-কানুন, যা আপনার ব্যক্তিত্বকে খর্ব করবে না বরং, আরও ফুঁটিয়ে তুলবে আপনার রুচিবোধ।আসুন জেনে নেওয়া যাক এইরকম কিছু নিয়ম –

ফ্যাশনেবল সানগ্লাস

০১. কাজ করা/কথা বলার সময় চোখের দৃষ্টি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তাই কথা বলার সময় সানগ্লাস খুলে রাখুন ।

০২. অফিসিয়াল কাজে এবং বন্ধুদের সাথে ঘুরতে বের হবার সময় একই শেডেড সানগ্লাস ব্যবহার না করে বাছাই করুন মানানসই শেডস এর সানগ্লাস ।

০৩. নিজের চেহারা বা চুল ঠিক করতে অন্যের সানগ্লাসকে আয়না হিসেবে দেখবেন না এতে আপনার ব্যক্তিত্ব ক্ষুণ্ণ হবে ।

০৪.মার্কেটে ,ক্লাসে বা ইনডোর গেইমসের স্টেডিয়ামে , রুমের ভেতর বা কোন অনুষ্ঠানে সানগ্লাস পরে বসে থাকবেন না যদি না  আপনার চোখের কোন সমস্যা থাকে ।

০৫.  একই সানগ্লাস সবসময় ব্যবহার না করে সময়ের সাথে সানগ্লাস পরিবর্তন করুন ।এতে নিজেকে সবার কাছে আরও আকর্ষণীও করে উপস্থাপন করতে পারবেন ।

০৬.কাজ ছাড়া  সবসময় মাথায় সানগ্লাস পরে রাখবেন না ।

০৭. সানগ্লাসের তারুন্যের প্রতীক। সানগ্লাস ছাড়া এ যুগের ফ্যাশন অপূর্ণ ।নিজেকে সঠিকভাবে ফুটিয়ে তুলতে মানানসই  ফ্যাশন্যবল সানগ্লাসের এর  সঠিক ব্যবহার করন ।

লক্ষ্য রাখবেন-
– চিকিৎসকের মতে, বাদামি রং এবং বাদামি শেডের সানগ্লাস চোখের জন্য ভালো, আরাম পাওয়া যায়।
– সানগ্লাসে নীল রংটা এড়িয়ে চলুন।
– চোখের সমস্যা ব্যতীত রাতে সানগ্লাস এড়িয়ে চলুন।
– রোদে সানগ্লাস পরে বাড়ি ফিরে চোখে পানির ঝাপটা দিন।
– খালি চোখে বা সানগ্লাস পরে সরাসরি সূর্যের দিকে তাকাবেন না।

ফ্যাশনেবল সানগ্লাস                  ফ্যাশনেবল সানগ্লাস             ফ্যাশনেবল সানগ্লাস

দ্যা হার্ভে নিকোলস স্টোরের এই সানগ্লাস গুলোর কোনটা রয়েছে ২৪ ক্যারট সোনা এবং কোনটাতে ডাইমণ্ড পাথর। সোনা দিয়ে তৈরি গ্লাসটির মূল্য ৭,০০০ পাউন্ড এবং ডাইমণ্ডের তৈরি গ্লাসটির মূল্য ২৭,০০০ পাউণ্ড। বলাই বাহুল্য এসব সান গ্লাস কিনবেন শিল্পপতি অথবা হলিউড বলিউডের সেলিব্রেটিরা যারা সান গ্লাসের সখ রাখেন অনেক বেশী।

কয়েকটি বিখ্যাত ব্র্যান্ডের সানগ্লাস হচ্ছে—আরমানি, পুলিশ, ডিএনজি, রে বন, ওকলে, প্যারাডা ইত্যাদি। রে বন ব্র্যান্ডের সানগ্লাস পাবেন ৫ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকার মধ্যে, গুচ্ছি পাবেন ৩ হাজার থেকে ৩০ হাজার টাকায়। সাধারণত নর্মাল ব্র্যান্ডের সানগ্লাস পাবেন ৮০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে। এছারাও আছে ১৫০ টাকা দামের গ্লাস । তবে সস্তা সানগ্লাসগুলো আপনার চোখের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তাই সানগ্লাস কেনার সময় চোখের কথা মাথায় রাখবেন।

Share This Post

Post Comment