চুলের জন্য ক্ষতিকর সাতটি বদঅভ্যাস

চুলের জন্য ক্ষতিকর সাতটি বদঅভ্যাস

চুলের জন্য ক্ষতিকর সাতটি বদঅভ্যাস

আপনি জানেন কি, চুলের জন্য ক্ষতিকর কিছু অভ্যাসের জন্য আপনার চুল প্রতিনিয়ত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ ধরনের সাতটি অভ্যাস দেওয়া হল এ লেখায়। যদি এ সাতটি অভ্যাসের কোনো কোনোটি আপনার থেকে থাকে, তাহলে তা বাদ দিন এখনই।

১. পুরনো ও নোংরা চিরুনি ও চুলের ক্লিপ ব্যবহার 
নিয়মিত চুলের পরিচর্যা সরঞ্জাম পরিষ্কার করা হয়তো আপনার প্রথম অগ্রাধিকারের মধ্যে পড়ে না। মনে করতে পারবেন, শেষ কবে আপনার চিরুনিটি ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করেছেন? নোংরা চুলের ব্রাশ, চিরুনি, ক্লিপ, ব্যান্ড ইত্যাদিতে জন্ম নেয় ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। যার অর্থ দাঁড়ায় আপনি পরিষ্কার করে চুল ধুয়ে প্রতিদিন আবার তার মধ্যে ছাড়ছেন ব্যাকটেরিয়াগুলো। এ কারণে অনেকের চুলে বাসা বাঁধে নানা ক্ষতিকর জীবাণু ও খুশকির মতো সমস্যা। এ সমস্যা সমাধানে চুলের পাশাপাশি নিয়মিত শ্যাম্পু বা বেকিং সোডা দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে চুলের সব সরঞ্জাম।
২. গরম যন্ত্রপাতি
আপনি কি চুল সোজা করার জন্য বা কোঁকড়া করার জন্য গরম কোনো সরঞ্জাম ব্যবহার করেন? নিদেন পক্ষে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করেন? যদি এগুলো সব ব্যবহার করে থাকেন তাহলে তা আপনার চুলের দ্বীগুণ ক্ষতি করছে। এ ধরনের সব যন্ত্রপাতি ব্যবহারের বদলে একটু কৌশলের আশ্রয় নিন। হেয়ার ড্রায়ারের গরম বাতাসের বদলে ঠাণ্ডা বাতাসে চুল শুকান। এরপর আয়রন ব্যবহার করুন।
৩. জীবনযাত্রার বাজে প্রভাব
আপনি যদি ব্যস্ত জীবনযাপন করে থাকেন, মানসিক চাপের মধ্যে থাকেন, অস্বাস্থ্যকর খাবার খান ও কম ঘুমান তাহলে তা আপনার চুলের জন্য ক্ষতিকর হবে। এতে চুলের বৃদ্ধিও কমে যাবে। জীবনে অনেক বিষয় আছে যেগুলো আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে। কিন্তু আপনি যদি চুল ঠিক রাখতে চান, তাহলে স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করুন। কমিয়ে ফেলুন জীবনের সব স্ট্রেস। চুলের পরিচর্যার জন্য ব্যবহৃত বহু মূল্যবান প্রসাধনীর চেয়ে এ কাজগুলো বেশি কাজে দেবে।
৪. হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহারে কৌশলী হোন
চুল শুকানোর জন্য অনেকেই হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করেন খুবই উচ্চ তাপমাত্রায়। কিন্তু তার বদলে স্বাভাবিক তাপমাত্রাতে বাতাস দিয়েও চুল শুকানো যায়। এছাড়া তাপ দিয়ে চুল শুকানোর সময়ও কিছুটা কৌশলের আশ্রয়ী হওয়া যায়। চুল যখন কিছুটা শুকানো শুরু করে তখন তাপমাত্রা কমিয়ে দিলেই হবে। আপনার হেয়ার ড্রায়ারে এ ব্যবস্থা না থাকলে সাবধানে ফ্যানের আশ্রয় নিতে পারেন। অন্যথায় উচ্চ তাপমাত্রায় আপনার চুলের ক্ষতি হবে।
৫. গরম পানিতে চুল ধোয়া
অনেকেরই গরম পানিতে চুল ধোয়ার অভ্যাস আছে। তবে গরম যে কোনো জিনিস চুলের জন্য ক্ষতিকর। অতিরিক্ত গরম পানিতে চুল ধোয়া হলে তা চুলকে পানিশূন্য করে ফেলে। এতে চুল শুকিয়ে যায় এবং ভেঙে যায়। তবে শীতকালে সামান্য উষ্ণ পানিতে চুল ধোয়া যাবে। কিন্তু অতিরিক্ত গরম পানি থেকে দূরে থাকতে হবে।
৬. ক্ষতিকর প্রসাধনী ব্যবহার
ক্ষতিকর প্রসাধনী ব্যবহার করে অনেকের চুলের মারাত্মক ক্ষতি হয়। এসবের মধ্যে রয়েছে চুল সোজা করে রাখার জন্য ব্যবহৃত জেল ও স্প্রে। এসব পদার্থ নিয়মিত ব্যবহারে চুল ভঙ্গুর হয়ে যেতে পারে। এসব পণ্যে অতিরিক্ত অ্যালকোহল থাকে এবং তা চুল নষ্ট করে।
৭. চুল টাইট করে বেঁধে রাখা
অনেকেই চুল টাইট করে বেঁধে রাখতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন। অনেকের এটা স্টাইলের অংশ। কাজের ক্ষেত্রেও এমন স্টাইল সমাদৃত। কিন্তু চুলের যত্নে টাইট করে বেঁধে রাখার বিষয়টি বাদ দেওয়াই উচিত। এতে আপনার চুলের ওপর চাপ পড়ে এবং চুল নষ্ট করে। নির্দিষ্ট একটি স্থানে নিয়মিত ক্লিপ ইত্যাদি লাগানোর ফলে চুলে চাপ পড়ে এবং সে স্থানটির চুল বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

Share This Post

Post Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.