জিমে ব্যায়ামের সময় যে ভুলগুলো বেশিরভাগ মানুষ করে থাকেন

জিমে ব্যায়ামের সময় যে ভুলগুলো বেশিরভাগ মানুষ করে থাকেন

ওজন কমানো, শারীরিক গঠন উন্নত এবং বডিবিল্ডিঙের জন্য অনেকেই জিমে গিয়ে ব্যায়াম করে থাকেন। জিমে নিয়মিত ব্যায়ামের মাধ্যমে শারীরিক গঠন উন্নত এবং ওজন কমানো সম্ভব হয়। কিন্তু যদি আপনি জিমে গিয়ে ব্যায়ামের সময় কিছু ভুল কাজ করেন তবে আপনার সকল পরিশ্রমই বৃথা যাবে। আপনার শারীরিক গঠনে পরিবর্তন তো আসবেই না বরং আপনি অসুস্থও হয়ে পড়তে পারেন। অনেকেই জিমে গিয়ে ব্যায়ামের ক্ষেত্রে কিছু ভুল কাজ করে থাকেন যা একেবারেই করা উচিৎ নয়। এই ভুলগুলো এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

অনিয়মিত ব্যায়াম করা
অনেকেই বন্ধুবান্ধবের সাথে কিংবা কারো অনুপ্রেরণায় উৎসাহিত হয়ে জিমে ভর্তি হন ঠিকই, কিন্তু কিছু দিনের মধ্যেই উৎসাহে ভাটা পড়ে আসে। আবার জিমে বন্ধুবান্ধব বেশি হয়ে গেলে আড্ডার মাঝে ব্যায়ামের কথা ভুলে গিয়ে অনেকেই আড্ডায় ব্যায়ামের কথা ভুলেই যান। এই কাজটি করতে যাবেন না। জিমের ট্রেইনার যেভাবে বলেন ঠিক সেভাবে নিয়মিত ব্যায়াম করে যাবেন। তা না হলে কোনো ফলাফল পাবেন না।

ক্যালোরি ক্ষয়ের ভুল হিসাব করা
জিমে অনেক মেশিনে ওয়ার্ক আউট করলে আপনার কতোটা ক্যালোরি ক্ষয় হলো তা দেখিয়ে থাকে। কিন্তু এক্ষেত্রে অনেকেই ভুল করেন। কারণ মেশিন সব সময় সঠিক হিসাব দেখাতে পারে না। এভাবে দিনে যতোটা ক্যালোরি ক্ষয় আপনার করার কথা তা সঠিক পরিমাণে হয় না। তাই মেশিনের ওপর ভরসা না রেখে ক্যালোরি কতোটা ক্ষয় হলো তার হিসাব রাখুন নিজে নিজেই। প্রয়োজনে অন্যান্য মানুষ এবং জিম ট্রেইনারের সহায়তা নিন।

প্রতিদিন একই রুটিনে ব্যায়াম করা
প্রতিদিন একই ব্যায়াম, একই ধরণের মেশিন ব্যবহার করতে যাবেন না। এটি অনেক বড় একটি ভুল কাজ। একেক দিন একেক ধরণের ব্যায়াম করুন এবং সে হিসেবে ব্যায়ামের মেশিন ব্যবহার করুন। এতে করে আপনার পুরো দেহের গঠনে পরিবর্তন আনতে পারবেন।

ওজন কমানো বা শারীরিক গঠন পরিবর্তনের জন্য তাড়াহুড়ো করা
আপনি মাত্র ১ সপ্তাহ কিংবা ১ মাসের মধ্যেই নিজের ওজন কমিয়ে ফেলতে পারবেন না বা বডিবিল্ডিং করতে পারবেন না। এর জন্য ধৈর্য এবং পরিশ্রমের প্রয়োজন রয়েছে। আপনি তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে একদিনে অনেক বেশি ব্যায়াম করে ফেললে নিজেই অসুস্থ হয়ে পড়বেন। তাই তাড়াহুড়ো করতে যাবেন না।

Share This Post

Post Comment