স্ট্রবেরির উপকারী গুনাগুন!

স্ট্রবেরির উপকারী গুনাগুন!

56

স্ট্রবেরি যদিও একটি বিদেশি ফল, কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশেও এটি খুবই সহজলভ্য। কোন কোন স্থানে এর বানিজ্যিক চাষাবাদও চলছে। তাই দামটাও এখন বেশ হাতের নাগালে। নানা ধরনের ডেজার্টে তো বটেই সুস্বাদু ফল স্ট্রবেরী আপনি রাখতে পারেন রোজকার খাদ্যতালিকাতেও। কেননা এই ছোট্ট ফলটি আপনার দেহের জন্যে যে কি ভীষণ উপকারী তা হয়তো আপনি জানেনও না!

১। স্মৃতিশক্তি

প্রতিদিনের খাদ্যতালিকাইয় একটি স্ট্রবেরী রাখুন, এতে আছে ফ্লাভোনোয়েড নামক উপাদান, যা আপনার স্ম্রিতিশক্তি বাড়ায়। এবং বয়স্কদের ক্ষেত্রে সপ্তাহে মাত্র ২ টি স্ট্রবেরী স্মৃতিশক্তি সতেজ রাখতে সাহায্য করে।

২। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ

এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, যা আপনাকে বিভিন্ন ধরণের রোগের সংক্রমণ থেকে বাঁচায়। মাত্র এক কাপ পরিমান স্ট্রবেরির জুস আপনার প্রতিদিনের ভিটামিন সি এর চাহিদা একাই পূরণ করে।

৩। ডায়াবেটিস ও কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করেঃ

এতে আছে প্রচুর পরিমাণে আঁশ বা ফাইবার যা রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রেখে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করে এবং ফাইবার প্রতিরোধ করে কোষ্ঠকাঠিন্য।

৪। সুন্দর ও মসৃণ ত্বকঃ

এতে আছে প্রচুর পরিমাণে এন্টি অক্সিডেন্ট ও ভিটামিন সি। যা ত্বককে রাখে মসৃণ ও উজ্জ্বল। সেই সাথে ত্বকে বয়েসের ছাপ পড়তেও বাধা দেয়। এতে আছে সেলিসাইলিক এসিড, যা ব্রণ প্রতিরোধে সাহায্য করে। স্ট্রবেরির পেস্ট ত্বকে ফেকপ্যাক হিসেবেও লাগাতে পারেন।

৫। ক্যান্সার পরিরোধ করেঃ

এতে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন সি ও লিউটিন যা ক্যান্সারের কোষ বাড়তে বাঁধা দেয়। সেই সাথে ক্যান্সার প্রতিরোধেও শক্তিশালী ভূমিকা রাখে।

৬। হাড়কে রাখে সুরক্ষিতঃ

স্ট্রবেরীতে থাকা পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ ও মিনারেল আপনার দেহের হাড়কে ক্ষয়ে যাওয়া থেকে রাখে সুরক্ষিত। শিশুদের হাড়ের বৃদ্ধিতে এটি দারুণ ভূমিকা রাখে।
৭। ওজন কমাতে সাহায্য করেঃ

এতে ক্যালরির পরিমান খুবই কম থাকে। এক কাপ স্ট্রবেরীতে মাত্র ৫৩ ক্যালোরি। এতে থাকা প্রচুর আঁশের কারণে এটি খুব দ্রুতই আপনার ক্ষিদে মেটায় বলে বার বার খাদ্যগ্রহনের ফলে আপনার ওজন বাড়ে না।

৮। চুল পড়া রোধ করেঃ

এতে থাকা ফলিক এসিড, এলাজিক এসিড, ভিটামিন বি-৫,৬ চুল পড়া কমিয়ে চুলে পুষ্টি যোগাইয়। সেই সাথে এতে থাকা ম্যাগনেশিয়াম ও কপার চুলে খুশকি হওয়া প্রতিরোধ করে। স্ত্রবেরির পেস্ট চুলেও ব্যবহার করতে পারেন।

৯। গর্ভবতী মায়েদের জন্যেঃ

এতে থাকা ফলিক এসিড ও অন্যান্য উপাদান গর্ভস্থ শিশুর অপূর্নাঙ্গতার ঝুঁকি কমায়। শিশুর মস্তিষ্ক, মেরুদন্ড ও খুলির গঠনে ভূমিকা রাখে।

প্রতিদিনের খাবারের তালিকার অন্তত একটি স্ট্রবেরী রাখুন। সুস্থ থাকুন।

Share This Post

Post Comment