আসছে চিরযৌবন থাকার ঔষধ

আসছে চিরযৌবন থাকার ঔষধ

মরণশীল মানুষ পাবে অমরত্ব, চিরযৌবন-এমনটি ভাবতে কার না ভালো লাগে? অমরত্ব লাভের চেষ্টা তো আর আজ-কালকের ব্যাপার নয়। হাজার হাজার বছর ধরে সেই চেষ্টা চালাচ্ছে মানুষ।

পুরাণেও আছে এমন চেষ্টা নিয়ে কাহিনী। অমরত্ব আর চিরযুবা হওয়ার জন্য সাত সমুদ্র তেরো নদী সেচে অমৃত সন্ধানের পুরাণ কাহিনীর কথা আমরা জানি; কিন্তু মানি না। কারণ কাউকে তো আর তেমনটি হতে দেখা গেল না।

কিন্তু সত্য সত্যই যদি এমনটি হয়? একটি বড়ি খেলেই যদি মানুষ হয়ে যায় চিরযুবা, অনন্ত যৌবনা? তখন? তখন তো আর না মেনে উপায় নেই। মানুষকে সেই বিশ্বাস দিতে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের একদল বিজ্ঞানী।

তাঁরা জানিয়েছেন, মানুষকে চিরযৌবন দিতে তাঁরা শিগগিরই নিয়ে আসছেন এক মহৌষধ। এ ওষুধ মানুষের অকালবার্ধক্যকেই ঠেকাবে। সেই সঙ্গে আয়ুও বাড়িয়ে দেবে ১০ বছরের বেশি।

বিজ্ঞানীরা বলেন, এ বিশেষ গবেষণার জন্য তাঁরা হাচিসন গ্লিফোর্ড প্রোজেরিয়া সিনড্রোমে (এইচজিপিএস) আক্রান্ত শিশুদের ত্বকের কোষ নিয়েছিলেন। এটি একটি বিরল রোগ। এতে আক্রান্ত শিশুরা দ্রুত বুড়িয়ে যায়।

মোটামুটি ১২ বছর বয়সে সাধারণত তাদের মৃত্যু হয়। বিজ্ঞানীরা ‘র‌্যাপামাইসিন’ নামের এক ধরনের ওষুধ ব্যবহার করে ওই শিশুদের কোষকে সারিয়ে তুলেছেন। বিজ্ঞানীরা এ ওষুধকে বলছেন ‘চিরযৌবনের ওষুধ’।
মানুষের অঙ্গ প্রতিস্থাপনের সময় এ র‌্যাপামাইসিন ব্যবহার করা হয় শরীরের প্রতিরোধব্যবস্থা দুর্বল করার জন্য। ইস্টার আইল্যান্ডের মাটিতে পাওয়া এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া থেকে এটি তৈরি করা হয়েছে।

Share This Post

Post Comment