কেন সিঁড়ি চড়বেন

কেন সিঁড়ি চড়বেন

যারা অতিরিক্ত ওজনের সমস্যায় ভুগছেন ও মেদবহুল শরীরের ঝক্কি থেকে দ্রুত নিস্তারের উপায় খুঁজছেন, তাদের জন্য সিঁড়ি চড়ার মতো সহজ ব্যায়াম খুব কমই আছে। লিফটের পরিবর্তে নিয়মিত সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামার অভ্যাসের ফলে নানা রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। দীর্ঘদিন সিঁড়ি চড়ার ফলে শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়। শুধু স্থূলকায় ব্যক্তিদের জন্য নয়, স্বাস্থ্য-সচেতন প্রতিটি মানুষের উচিত এ অভ্যাসটা গড়ে তোলা। শরীরের বাড়তি ক্যালোরি পোড়ানোর পাশাপাশি হার্টের রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেকাংশে হ্রাস করে এ অভ্যাস। শহরে দীর্ঘদিন বসবাসের ফলে অনেকের মধ্যে এক ধরনের অলসতার প্রবণতা কাজ করে। মানুষ সময় বাঁচাতে বা সামান্য শারীরিক কষ্ট এড়ানোর এই প্রবণতা থেকে লিফট ব্যবহার করেন। কিন্তু, নগরকেন্দ্রিক এ জীবনে ব্যায়ামের যে সুযোগটুকু আমরা পাই, সেটুকু অবশ্যই কাজে লাগানো উচিত। নিচে সিঁড়ি চড়ার কয়েকটি উপকারিতা তুলে ধরা হলো।

১. সুস্থ-সবল হার্টের জন্য: সিঁড়িতে ওঠা-নামার ফলে আমাদের হৃদস্পন্দনের হার দ্রুত বেড়ে যায়। সাধারণ হাঁটার তুলনায় বেশি রক্ত সঞ্চালনের ফলে সারা শরীরে রক্ত সরবরাহের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। শরীরের বাকি অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের জন্য তো বটেই, এ অভ্যাস হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য বেশ ভালো বলে প্রমাণ করেছেন গবেষকরা।

২. মাংসপেশীর শক্তি বাড়াতে: সিঁড়ি চড়ার ফলে আপনার শরীরের অভ্যন্তরীণ মাংসপেশীসমূহের গঠন আরও সুদৃঢ় ও মজবুত হয়। ফলে, পরিশ্রম করার সামর্থ্য বাড়ে। অনেক বেশি বয়স পর্যন্ত কাজ করতে পারার সক্ষমতা তৈরি হয়।

৩. শারীরিক গঠনকে সুগঠিত করতে: আপনার শরীরের নিচের অংশের প্রতিটি প্রধান মাংসপেশী ব্যবহার হয় সিঁড়ি চড়ার সময়। পায়ের রগে বা পেশীতে টান ধরা কিংবা ব্যথা অথবা অন্য কোন বড় সমস্যা থেকেও এ অভ্যাসে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব।

৪. সহজ ব্যায়াম: ঘাম ঝরানো ছাড়াই সিঁড়ি চড়ার উপকারিতা পাওয়া সম্ভব। একদিকে ক্যালোরিও পুড়বে, তার সঙ্গে ব্যায়ামও হবে। প্রতিদিন নিয়মিত সিঁড়িতে ওঠানামা সবচেয়ে সহজ ও উপকারি ব্যায়ামগুলোর একটি। তাই আজই লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি চড়ার অভ্যাস করুন।

৫. বাড়তি ক্যালোরি পোড়াতে: সিঁড়ি চড়ার সময় আমাদের শরীরের প্রধান প্রধান মাংসপেশী সমূহকে অনেক বেশি কাজ করতে হয়। সিঁড়ির একটি ধাপ থেকে আরেকটি ধাপে ওঠার জন্য পুরো শরীরের ওজন বহন করতে হয় মাংসপেশী সমূহকে। সিঁড়ি থেকে নামার ক্ষেত্রে তুলনামূলকভাবে কম ক্যালোরি খরচ হয়। দৌড়ানোর চেয়ে সিঁড়ি চড়ায় তাই অনেক বেশি ক্যালোরি পোড়ানো সম্ভব। তাই চিকিৎসকরা অনেক সময় চার-পাঁচতলায় ওঠার ক্ষেত্রে লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি চড়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তবে, বেশি ওপরে উঠতে হলে, সেক্ষেত্রে কিছুটা সিঁড়িতে চড়ে এবং বাকিটা লিফটে চড়ে যাওয়া উচিত। তাছাড়া, ষাটোর্ধ্ব বয়সে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সেটা করতে হবে।

Share This Post

Post Comment