বাংলাদেশি হ্যাকারদের বিধ্বংসী সাইবার যুদ্ধ

বাংলাদেশি হ্যাকারদের বিধ্বংসী সাইবার যুদ্ধ

বাংলাদেশ-ভারতের ম্যাচে আইসিসির ভুল সিদ্ধানের প্রতিবাদে চলছে বিধ্বংসী সাইবার যুদ্ধ। এ জন্য ‘রাইজ অফ দ্য টাইগারস’ নামে বাংলাদেশি কয়েকটি হ্যাকার টিম যৌথ উদ্যোগে কাজ শুরু করেছে। ইতোমধ্যেই তারা আইসিসির সাইট ডাউন করে দিয়েছে। তারা ১৪ শতাধিক ভারতীয় সাইট হ্যাক করেছে। এদিকে বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকারস সাইবার যুদ্ধের প্রস্তুতি নিয়ে একটি ভিডিও বার্তাও প্রচার শুরু করেছে। সাইবার-৭১ নামের আরেকটি হ্যাকার টিম ভারতের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি, আইপিএলে পেপসির প্রধান পৃষ্ঠপোষক নিস ওয়াদিয়া এবং প্রীতি জিনতার দল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব, ইশান্ত শর্মাসহ ভারতীয় ক্রিকেটারদের ওয়েবসাইট, ব্যাংক, পুলিশ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ ভারতীয় ২৩ শতাধিক ওয়েবসাইট করেছে বলে দাবি করেছে।

Hack-640‘রাইজ অফ দ্য টাইগারস’ (https://www.facebook.com/groups/rot.ddos) টিমে এক যোগে কাজ করছে বাংলাদেশের হ্যাকার সংগঠন বাংলাদেশ গ্রে হ্যাট হ্যাকার্স, সাইবার-৭১, বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকার্স, সুপার কিং গ্রুপ, বাংলাদেশ সাইবার আর্মি, এক্সপায়ারড সাইবার আর্মি, সাইবার সোর্ড, টিম সিসি এবং বাংলাদেশ স্ক্রিপ্ট কিডি হ্যাকারস। সংঘবদ্ধ আক্রমণের ফলে ভারতের শেয়ার বাজারের সাইট প্রায় ২০ মিনিট ডাউন হয়ে ছিল। এছাড়া আরও বিগ স্কেলে অ্যাটাকের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশি এই হ্যাকাররা। তবে শুরুটা করেছে ভারতের কিছু তরুণ। কিছুদিন আগে তারা একটি সফ্ট ড্রিঙ্কস প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের আদলে বাংলাদেশকে কটাক্ষ করে ভিডিও তৈরি করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়। তারই পাল্টা জবাব দিয়েছে টাইগারসদের মতো বেশ কিছু হ্যাকার। ইতিমধ্যে এক মওকা মওকা-র প্রতিবাদে বাংলাদেশে তৈরি হয়েছে ।

এদিকে বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকারস অপারেশন ইন্ডিয়া (#‎OpIndia‬) নামে একটি হ্যাকিং এর উদ্যোগ নিয়েছে। সেখানে তারা বলেছে, আমরা আরেকটি সাইবার যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছি। ভারত আমাদের ক্রিকেট টিম নিয়ে হাস্যরস করেছে। তারা আমাদের স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃতি করে সীমালঙ্ঘন করেছে। তারা আমাদের দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ নিয়ে কোন বাজে মন্তব্য করার অধিকার রাখে না। আমরা এসবের প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সাথে ২০১২ সালে ভারতের সাথে আমাদের সাইবার যুদ্ধে ফিরে যেতে চাই। ব্ল্যাক হ্যাকের সম্পূর্ণ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিটি দেখা যাবে https://www.facebook.com/bd.black.hat.hackers/posts/553830601387097 এই ঠিকানায়। একই সাথে তাদের এ সংক্রান্ত ভিডিও বার্তাটি দেখা যাবে https://www.youtube.com/watch?v=pwsdPk9y61U এই ঠিকানায়।

এদিকে সাইবার-৭১ তাদের ফেসবুক পেজে জানিয়েছে, দুর্নীতির প্রতিবাদ চলছে, চলবেই। বাঘের থাবায় ম্যাচের আগেই হ্যাক হয়েছিলো আইপিএলে পেপসির প্রধান পৃষ্ঠ পোষক কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব সহ ভারতীয় অধিনায়ক ধোনী, ইশান্ত শর্মাসহ তাদের ওয়েবসাইট। এরপরে দ্বিতীয় দফায় আক্রমনে ব্যাংক, পুলিশ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ গতকাল আর আজ (শনিবার) মিলিয়ে হ্যাক হয়েছে ২৩ শতাধিক ভারতীয় প্রয়োজনীয় ওয়েবসাইট। সেই লিস্টে যুক্ত হলো ভারতীয় সরকারী ওয়েবসাইটসহ প্রয়োজনীয় আরো কিছু ওয়েবসাইট।

সাইবার-৭১ আরও জানায়, ভারতীয় ফিরোজ গান্ধী বিশ্ববিদ্যালয়, ভারতীয় আমদানি রপ্তানী বিষয়ক সরকারী ওয়েবসাইট, ভারতীয় খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সরকারী ওয়েবসাইট, ভারতীয় পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের সরকারী ওয়েবসাইটও হ্যাক করেছে সাইবার ৭১। সব শেষে তারা জানিয়েছে, “আরো বড় আক্রমণ আসছে… বিস্তারিত জানতে আমাদের অফিশিয়াল গ্রুপে আর পেজে নজর রাখতে ভুলবেন না।” সাইবার-৭১ এর হ্যাক করা লিস্ট দেখা যাবে https://www.facebook.com/Cyber71Official/posts/382009568649878 এই ঠিকানায়।

Share This Post

Post Comment