মেকআপ ও রূপচর্চার দারুণ কার্যকরী টিপস

মেকআপ ও রূপচর্চার দারুণ কার্যকরী টিপস

সুন্দরের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরদিনের। ঠিক এ কারণেই মানুষ নিজেক সুন্দর ও আকর্ষক করে তুলতে চায়। প্রসাধনসামগ্রীর মধ্যে মেকআপ চেহারার খুঁতগুলো ঢাকতে এবং সুন্দর করে তুলতে সাহায্য করে। রইলো মেকআপ সম্পর্কিত কিছু টিপস।

১) ত্বকের উজ্জ্বলতার জন্য মেকআপ শুরু করার আগে ঈষদুষ্ণ পানি ও ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিন। তারপর পাঁচ-দশ মিনিট হালকা করে বরফ ঘষে নিন। মেকআপের সময় ঘেমে যাবেন না।

২) কটন প্যাডে ক্লেনজিং মিল্ক লাগিয়ে মুখ মুছে নিন।

৩) এরপর ময়েশ্চারাইজার লাগান। তবে অতিরিক্ত পরিমাণে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন না। ত্বক তৈলাক্ত হয়ে যেতে পারে। এরপর মেকআপ করা শুরু করুন।

৪) চোখ ও ঠোঁটের মেকআপে ভারসাম্য করতে পারলে মেকআপ উগ্র হবে না। চোখে ভারী মেকআপ করলে ঠোঁটে উজ্জ্বল লিপ কালার লাগান।

৫) রাতের অনুষ্ঠানে উজ্জ্বল আলো হালকা রঙকে অনুজ্জ্বল করে তোলে। তাই রাতে হালকা রঙের লিপস্টিক না লাগালেই ভালো।

৬) ভ্রু যদি হালকা হয় তাহলে আইব্রো পেনসিল দিয়ে ভ্রু আঁকতে পারেন। পেনসিল আগে শার্প করে নিন যাতে আঁকতে সুবিধা হয়। ছোট এবং মসৃণ স্ট্রোকস আঁকুন। গাঢ় বাদামি রঙের পেনসিল ব্যবহার করলে ভ্রু প্রাকৃতিক লাগে। প্রতিদিন ভ্রুতে ক্যাস্টর অয়েল লাগালে উপকার পাবেন।

৭) সানস্ক্রিনযুক্ত লিপ বাম ব্যবহার করুন। যদি আপনার ঠোঁট শুকনো হয় তাহলে ম্যাট লিপস্টিক না লাগিয়ে গ্লসি লিপস্টিক লাগান।

৮) প্রতিদিন মুখ ধোওয়ার পর নরম তোয়ালে দিয়ে আলতো করে ঘষে ঠোঁটের মৃত কোষ ঝরিয়ে ফেলুন।

৯) ঠোঁটের ওপর দুধের সর লাগিয়ে ১ ঘণ্টার মতো রেখে দিন। রোজ রাতে ঠোঁটে আমন্ড অয়েল লাগালে উপকার পাবেন।

১০) পাতলা ঠোঁট হলে হালকা রঙের এবং গ্লসি লিপস্টিক লাগান। এতে আপনার ঠোঁট ভরাট দেখাবে।

১১) নেল পলিশের ওপর আরেক প্রস্থ স্বচ্ছ নেল পলিশ লাগান। এতে নখ হলুদ হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

১২) ত্বকে উজ্জ্বলতা আনতে চাইলে থুতনি ও গলার অংশে গোল্ড পাউডার হলাকা ব্লাশার দিয়ে লাগিয়ে ফেলুন।

১৩) লিপস্টিক লাগানোর পর ওয়েট লুকের জন্য (রঙ ছাড়া ওয়াটার কালার) লিপগ্লস ব্যবহার করুন। লিপস্টিকে লাল, গোলাপি রঙ ব্যবহার করুন। খুব গাঢ় রঙ এড়িয়ে চলুন। গাঢ় বাদামি বা মেরুন রঙ ব্যবহার না করাই ভালো।

Share This Post

Post Comment