বাড়িতেই তৈরী করুন ন্যাচারাল হেয়ার কন্ডিশনার

বাড়িতেই তৈরী করুন ন্যাচারাল হেয়ার কন্ডিশনার
চুলের নানা সমস্যার সমাধানে হেয়ার কন্ডিশনার দারুণ দাওয়াই। কী করে এটা ঘরে বানিয়ে ব্যবহার করবেন চলুন জেনে নেয়া যাক। শীতের বাতাসে অতিরিক্ত ধুলাবালি খুব সহজে চুলে আটকে গিয়ে চুল খসখসে ও রুক্ষ হয়ে যায়। ঘরোয়া উপায়ে পরিচর্যার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করা যায়। আমাদের হেয়ার ফলিকলসের মধ্যে থাকে ন্যাচারাল অয়েল (সেবাম), যা মাথার স্ক্যাল্প ভালো রাখে। হেয়ার কন্ডিশনার চুলে সেবাম ব্যালান্স বজায় রাখে। ঘরোয়া কন্ডিশনার নষ্ট হওয়া চুলকে মোলায়েম, মসৃণ আর আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনে।

গ্লিসারিন

চুল শুষ্ক যাদের, তারা একটি পাকা কলা, চার টেবিল চামচ নারিকেল তেল, চার টেবিল চামচ মধু, চার টেবিল চামচ গ্লিসারিন একসঙ্গে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন। তারপর শ্যাম্পু করা পরিষ্কার চুলে লাগিয়ে শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে চুল ঢেকে রাখুন। ৩০ মিনিট পর চুল ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন চুল নরম ও মসৃণ হয়ে উঠেছে।

নারিকেল তেল

চুল তৈলাক্ত হলে, এক কাপ পানি, একটি ডিমের কুসুম, এক চা চামচ নারিকেলের তেল বাটিতে নিয়ে খুব ভালোভাবে ফেটিয়ে নিন। ফেনা হলে আরো একটু নারিকেল তেল মিশিয়ে আরো কিছুক্ষণ ফেটান। এই কন্ডিশনারটি চুলে ম্যাসাজ করে লাগিয়ে অপেক্ষা করুন ৩০ মিনিটের মতো। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

অলিভ অয়েল

চুল নিস্তেজ হয়ে পড়লে সপ্তাহে একবার অলিভ অয়েল হালকা গরম করে চুলে ভালোভাবে ম্যাসাজ করে লাগান। এভাবে দু-তিন ঘণ্টা চুলে লাগিয়ে রেখে শ্যাম্পু করে নিন।

মধু

চুল নরম করতে আধা কাপমধু, চার টেবিল চামচ অলিভ অয়েল একত্রে মিশিয়ে বোতলে ভরে রাখুন। তারপর গোসলের আগে চুলে লাগিয়ে শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে চুল ঢেকে ৩০ মিনিট রেখে দিন। এরপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

মেয়োনিজ

চুল ডিপ কন্ডিশন করতে, এক কাপ মেয়োনিজ, দুই টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, এক টেবিল চামচ বাদামের তেল ভালোভাবে মিশিয়ে মিশ্রণটিকে ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করে লাগিয়ে নিন। আধা ঘণ্টা পরে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

কলা-লেবু

চার টেবিল চামচ চটকানো পাকা কলা, এক চামচ মধু আর এক চা চামচ জাম্বুরা বা লেবুর রস নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। গোসলের ৩০ মিনিট আগে চুল ও স্কাল্পে ম্যাসাজ করুন। তারপর মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চুল ভালো কন্ডিশনিং হবে।

নারিকেল দুধ

একটি অ্যাভোক্যাডো, এক কাপ নারিকেল দুধ, দুই টেবিল চামচ নারিকেল তেল নিন। অ্যাভোক্যাডোর খোসা ছাড়িয়ে চটকে নিন। এর সঙ্গে নারিকেলের দুধ ও নারিকেল তেল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। পুরো চুলে লাগিয়ে নিন এটি। ডিপ কন্ডিশনের জন্য ৩০ মিনিট চুলে লাগিয়ে রাখতে হবে। তারপর চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুল নরম করবে।

বাটার

বাটার চুলের কন্ডিশনিংয়ের কাজ করে। দুই টেবিল চামচ বাটার, আধা কাপ অলিভ অয়েল, এক চা চামচ ভিটামিন-ই অয়েল বা দুটি ই-ক্যাপ নিন। একটি সসপ্যানে বাটার গরম করুন, যতক্ষণ পর্যন্ত না গলে যায়। এরপর এর সঙ্গে অলিভ অয়েল মেশান। ৩০ থেকে ৪০ মিনিট সময় দিন ঠাণ্ডা হওয়ার জন্য। কিন্তু খেয়াল রাখবেন, মিশ্রণটি যেন জমে না যায়। এর মধ্যে ভিটামিন-ই ক্যাপ মিশিয়ে নাড়তে থাকুন। ঘন হলে ব্যবহার করুন। এটা বায়ু নিরোধক কৌটায় সংরক্ষণ করা যায়।

অ্যালোভেরা জেল

চুল খুব নরম রাখতে, এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ অ্যালোভেরা জেল, এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ নারিকেলের তেল অথবা অলিভ অয়েল একসঙ্গে মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে রাখুন ৩০ মিনিট। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

Share This Post

Post Comment