নিখুঁত ত্বকের জন্য ফাউন্ডেশন ব্যবহারের পার্ফেক্ট ৫টি ধাপ

নিখুঁত ত্বকের জন্য ফাউন্ডেশন ব্যবহারের পার্ফেক্ট ৫টি ধাপ

মেকআপের জন্য সঠিকভাবে ফাউন্ডেশন ব্যবহার করাটা যে কতো জরুরী তা বোধহয় কাউকেই বলে দিতে হবে না। ফাউন্ডেশন ভালোভাবে ত্বকে না মিশলে ভীষণ মেকী মনে হবে চেহারাটাকে। আবার ভালোভাবে ব্লেন্ড করা হলেই আপনার মুখে ছড়িয়ে পড়বে লাবণ্যের দ্যুতি। জেনে রাখুন একদম নিখুঁত ত্বক পেতে হলে ফাউন্ডেশন দেবার জন্য কী করতে হবে আপনাকে।

ফাউন্ডেশন ব্যবহারে অনেকগুলো কাজ একসাথে হয়ে যায়। ত্বকের ছোপ-ছোপ দাগ, ব্রণের দাগ, কালচেভাগ দূর করার জন্য ফাউন্ডেশন চমৎকার কাজ করে। তবে বেশ কয়েক ধরণের ফাউন্ডেশন আছে, একেক ব্র্যান্ডের ফাউন্ডেশনের আবার কার্যকারিতা একেক রকম। বেশ কিছু সেলেব্রিটির মেকআপ আর্টিস্ট লিজা জারেৎস্কি Huffington Post কে জানান, খুব অল্প কিছু বেসিক তথ্য জানা থাকলেই ঠিকমতো ফাউন্ডেশন ব্যবহার করা সম্ভব। তার মতে, এভাবে ফাউন্ডেশন দেবার রয়েছে চারটি ধাপ। আবার Fashion Journal এর ম্যানেজিং এডিটর এবং মেকআপ আর্টিস্ট এরিকা মানিসকাল্কো Style Caster কে লিকুইড ফাউন্ডেশন ব্যবহারের আটটি টিপস দেন। Glamour থেকেও পাওয়া ফাউন্ডেশন ব্যবহারের পাঁচটি ধাপ। ত্বকে একটা ফ্রেশ, নিখুঁত লুক নিয়ে আসতে লিকুইড ফাউন্ডেশনটাই ব্যবহার করতে দেখা যায়। আর এটা ঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারলে মনে হবে আপনার ত্বকে কোনো মেকআপই নেই।

১) ফাউন্ডেশন দেবার আগে মুখ পরিষ্কার করে নিন। ময়লা ত্বকে কোনো রকমের মেকআপ করবেন না কখনোই। অল্প করে ময়েশাচারাইজার দিতে পারেন মুখে। মেকআপ আর্টিস্ট র‍্যাচেল গুডউইন Glamour কে জানান, ময়েশাচারাইজার দেবার ৫ মিনিট পর ত্বক ফাউন্ডেশন দিতে হবে। অনেক বেশ সময় ধরে ত্বকে মেকআপ রাখতে চাইলে প্রাইমার দিতে পারেন।

২) সবসময় নিজের ত্বকের শেডের ফাউন্ডেশন ব্যবহার করবেন। ফাউন্ডেশনের কৌটাটা ঝাঁকিয়ে নিন। অল্প করে লিকুইড ফাউন্ডেশন আপনার হাতের উল্টো পিঠে নিন এবং ফাউন্ডেশন ব্রাশে কিছুটা তুলে নিন। ব্রাশ ব্যবহার করতে না চাইলে আঙ্গুল ব্যবহার করতে পারেন। আঙ্গুলে করে ফাউন্ডেশন নিয়ে কপালে দুই ফোঁটা, গালে দুই ফোঁটা, নাকে এক ফোঁটা এবং থুতনিতে এক ফোঁটা ফাউন্ডেশন দিন। এতে সারা মুখে সমানভাবে ছড়ানো যাবে।

৩) নাক থেকে শুরু করে নিচের দিকে স্ট্রোক করে ত্বকে দিন ফাউন্ডেশন। মুখের ভেতর থেকে বাইরের দিকে ছড়িয়ে দিন। হালকা মেকআপের জন্য শুধু টি-জোনে ফাউন্ডেশন দিতে পারেন। নয়তো পুরো মুখে দিতে পারেন।

৪) স্পঞ্জ দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন ফাউন্ডেশন। গলায়, হেয়ারলাইনের কাছে, কানে মিশিয়ে নিন ফাউন্ডেশন যাতে বেমানান না লাগে।

৫) ব্রাশ দিয়ে লুজ বা ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার ফাউন্ডেশনের শুধুমাত্র টি-জোনে দিন। এটা ফাউন্ডেশনকে জায়গামত ধরে রাখবে।

টিপস:

– ফাউন্ডেশন দেবার পর আরও কোনো দাগ-ছোপ দেখা দিলে কনসিলার ব্যবহার করতে পারেন।

– চোখের নিচের কালচেভাব দূর করতে লালচে কালার কারেক্টর বা পিচ কালারের লিপস্টিক দিয়ে তার ওপরে দিন কনসিলার।

– কনসিলার মেশানোর জন্য আলতোভাবে অনামিকা অথবা কনিষ্ঠ আঙ্গুল ব্যবহার করুন।

– ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার বা লুমিনাস পাউডার দেবার জন্য স্পঞ্জ নয়, ব্যবহার করুন ব্রাশ। এতে অতিরিক্ত পাউডার আপনার ত্বকে আটকে থাকবে না।

Share This Post

Post Comment