মাত্র দুই সপ্তাহে ত্বকের রঙ ফর্সা করুন।

মাত্র দুই সপ্তাহে ত্বকের রঙ ফর্সা করুন।

ত্বকের রং উজ্জ্বল করার জন্য আমাদের কত শত চেষ্টা। এর জন্য কত দামী দামী রং ফর্সাকারী ক্রিম, লোশন ব্যবহার করে থাকি আমরা অনেকেই। আবার অনেকে স্কিন ট্রিটমেন্টও করিয়ে থাকি। ব্লিচিং, হোয়াটিং ট্রিটমেন্ট সাময়িকভাবে আপনার ত্বক উজ্জ্বল করলেও, স্থায়ীভাবে এটি আপনার ত্বকের ক্ষতি করে থাকে। তাই রাসায়নিক পণ্য ব্যবহার করার চেয়ে ঘরে তৈরি করা ক্রিম ব্যবহার করা অনেক বেশি নিরাপদ। ত্বকের রঙ যদি ফর্সা করতেই চান, তাহলে ঘরেি তৈরি করে ফেলতে পারেন রং ফর্সাকরী নাইট ক্রিম খুব সহজে। আসুন, আজ জেনে নিই বাজারের মত স্কিন হোয়াটিং নাইট ক্রিম তৈরি করার পদ্ধতি।
যা যা লাগবেঃ
– ১/৪ কাপ কাজু বাদাম
– ১/৪ কাপ টক দই ( ক্রিমী)
– ২ টেবিল চামচ কাঁচা লেবুর রস
– এক চিমটি হলুদের গুঁড়া
– ১/২ চা চামচ চন্দনের গুঁড়া
– ১ চিমটি জাফরন
যেভাবে তৈরি করবেনঃ
– কাজুবাদাম সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে বাদামের খোসা ছাড়িয়ে পিষে পেষ্ট করে নিন।
– এখন কাজুবাদামের পেষ্ট, টক দই, লেবুর রস, হলুদের গুঁড়া, চন্দনের গুঁড়া, জাফরান মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। খুব ভাল করে উপাদানগুলো মেশান যেন দানা দানা না থাকে।
– কাঁচা লেবুর রসের পরিবর্তে আপনি পাকা লেবুর রসও ব্যবহার করতে পারেন।
– হলুদের গুঁড়া ব্যবহারে আপনার যদি অ্যালার্জি থাকে তবে আপনি হলুদ বাদ দিতে পারেন।
– ক্রিমটি তৈরি করার পর ফ্রিজে রেখে সংরক্ষণ করুন। সাথে সাথে ব্যবহার করতে চাইলে ব্যবহারের আগে কমপক্ষে এক ঘন্টা ফ্রিজে রেখে দিন।
– এক সপ্তাহের বেশি এটি সংরক্ষণ করবেন না।
যেভাবে ব্যবহার করবেনঃ
– ঘুমাতে যাবার আগে এই ক্রিমটি ব্যবহার করতে হবে।
– প্রথমে হালকা কোন ক্লিনজার দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। আপনি চাইলে দুধ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে পারেন।
– মুখ ধোয়ার পর ক্রিমটি হাতে নিয়ে আঙুলের সাহায্যে ম্যাসাজ করে মুখে লাগান। ক্রিমটি যেন ভাল করে মুখের সাথে মিশে যায়, সে দিকে লক্ষ্য রাখবেন। ক্রিমটি মুখে লাগিয়ে ঘুমিয়ে পরুন।
– সকালে ঘুম থেকে উঠে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার ত্বকের কালো দাগ, ব্রণের দাগ , ব্ল্যাক হেডেস দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করবে।
– প্রতিদিন এটি ব্যবহার করুন। দুই সপ্তাহের মধ্যে আপনি আপনার ত্বকের পরিবর্তন দেখতে পারবেন।

Share This Post

Post Comment