প্রচলিত যে ভুলগুলো নষ্ট করে দিচ্ছে আপনার ত্বকের সৌন্দর্য!

প্রচলিত যে ভুলগুলো নষ্ট করে দিচ্ছে আপনার ত্বকের সৌন্দর্য!

নিজেকে একটু সুন্দর করে উপস্থাপন করতে কার না ভালো লাগে। সবাই চান বছরের সবকটি দিনেই তাকে দেখতে ভালো লাগুক। নিজেকে আকর্ষণীয় লাগুক। এর জন্য কমবেশি সবাই কিছু না কিছু করে থাকেন। ছেলে মেয়ে সবাই নিজের সৌন্দর্য সচেতনতাবশত অনেক কিছুই করেন। সব চাইতে বেশী যত্ন নেয়া হয় ত্বকের। ডারমাটোলজিস্টদেরও একই অভিমত যে ত্বক ভালো থাকলে সবাইকেই বেশ ভালো দেখায়। কিন্তু এই ত্বকের যত্ন নিতে গিয়েই আমরা উল্টো এর ক্ষতি করে বসছি অনেকভাবে। না জেনেই কিছু কাজ যা আমরা ত্বকের যত্নে করে যাচ্ছি,অথচ দেখা যায় সেই কাজগুলোই ত্বকের ক্ষতি করছে অনেক বেশী। জেনে নিন ত্বকের যত্নে যে কাজগুলো করা একদমই উচিত নয় সে সেগুলো কী কী।

 

1. অতিরিক্ত ময়েসচারাইজার:
ময়েসচারাইজার ত্বকের জন্য অনেক ভালো। ত্বকের রুক্ষতা দূর করতে আমরা অনেকেই ময়েসচারাইজার ব্যবহার করি। কিন্তু অনেককে দেখা যায় অতিরিক্ত ময়েসচারাইজার ব্যবহার করতে। মুখ ধুয়ে ফেললেই পুনরায় ময়েসচারাইজার লাগিয়ে ফেলেন। কিন্তু ডারমাটোলজিস্টদের মতে দিনে ২/৩ বারের বেশী ময়েসচারাইজার ব্যবহারে ত্বকে সাদা ছোপ পরে। সুতরাং বেশী ময়েসচারাইজার ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন।

2. স্ক্রাবিং:
ময়েসচারাইজারের মতই স্ক্রাবিংএর ক্ষেত্রেও সতর্ক থাকা প্রয়োজন। ত্বকের ময়লা, মরা কোষ দূর করার জন্য আমরা স্ক্রাব করে থাকি। এই স্ক্রাবগুলোতে উপাদান গুলো বিভিন্ন আকারের এবং একটু শক্ত প্রকৃতির হয়ে থাকে। প্রতিদিন কিংবা সপ্তাহে ২ বারের বেশী স্ক্রাবিং করার ফলে আমাদের নরম ত্বকের টিস্যু ছিঁড়ে যাবার সম্ভাবনা দেখা দেয়। এছাড়াও ত্বকে র‍্যাশ উঠে থাকে অনেকের। তাই সপ্তাহে ২ বারের বেশী স্ক্রাব করবেন না।

3. সানস্ক্রিন না লাগানো:
অনেকেই শুধুমাত্র গ্রীষ্মকালে কিংবা বেশী রোদ হলে ত্বকে সানস্ক্রিন লাগিয়ে থাকেন। এটা একটি ভুল কাজ। সানস্ক্রিন প্রতিদিন লাগাবেন। সানস্ক্রিন শুধুমাত্র সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি থেকে আপনার ত্বককে রক্ষা করে না এর পাশাপাশি ত্বকে একটি ধুলো বিরোধী পর্দার মত কাজ করে থাকে। তাই বছরের ৩৬৫ দিনই সানস্ক্রিন লাগান।

4. ওয়েট টিস্যু কিংবা ফেইস ওয়াইপারের ব্যবহার:
বাইরে কোথাও গেলে কিংবা বাসায় ফিরে সময় বাঁচাতে অনেকেই ওয়েট টিস্যু কিংবা ফেস ওয়াইপারের ব্যবহার করে থাকেন। মনে করেন সারাদিনের ধুলোবালি মুখে নিয়ে বেড়ানোর চাইতে ওয়েট টিস্যু কিংবা ফেইস ওয়াইপারের ব্যবহার করলে ত্বক ঠিক থাকবে। এটা একটি ভুল ধারনা। ওয়েট টিস্যু কিংবা ফেস ওয়াইপারে নানান রাসায়নিক থাকে যা আপনার অজান্তে ত্বকের ক্ষতি করে ফেলে আপনি বুঝে ওঠার আগেই।

5. সময়ের আগেই অ্যান্টিএইজিং ক্রিম লাগানো:
ত্বক সচেতন অনেকেই এই ভুলটি করে থাকেন। নিজের চেহারায় বয়সের ছাপ না দেখতে চাওয়ায় এই ভুলটি হয়। অনেকেই মনে করেন আগে থেকেই প্রতিরোধী এই ক্রিম মাখলে ত্বকে বয়সের ছাপ পড়বে না। কিন্তু একটি সম্পূর্ণ ভুল। যদি আপনি সময়ের পূর্বেই ত্বকে অ্যান্টিএইজিং ক্রিম লাগানো শুরু করেন তবে আপনার ত্বকের কুঁচকে যাবার সম্ভাবনা বেশী। কারন সাধারণ ক্রিমের তুলনায় অ্যান্টিএইজিং ক্রিমের উপাদান অন্যরকম হয়ে থাকে।

6. স্কিন প্রোডাক্ট বারবার বদলানো:
যতবারই নতুন ত্বকের প্রোডাক্ট আসে, তখন অনেকেই ত্বকের উন্নতি ও সৌন্দর্যের আশায় তা কিনে ত্বকে লাগিয়ে দেখেন। এই কাজটি ভুলেও করতে যাবেন না। এতে ত্বকের অনেক বড় ক্ষতি হয়ে থাকে। বারবার স্কিন প্রোডাক্ট বদলালে ত্বক নতুন প্রোডাক্টের জন্য নিজে থেকে তৈরি হতে পারে না। ফলে উল্টো ব্রণের বা র‍্যাশের সমস্যা দেখা দিতে পারে। অন্তত ৬ মাস একটি প্রোডাক্ট ব্যবহার করা উচিত।

Share This Post

Post Comment