ফাউন্ডেশন ব্যবহারে আকর্ষনীয় মেকআপের কৌশল

ফাউন্ডেশন ব্যবহারে আকর্ষনীয় মেকআপের কৌশল

ত্বকের সঙ্গে মানানসিই ফাউন্ডেশন বেছে নিতে না পারলে পুরো মেইকআপই বৃথা। তাই ফাউন্ডেশন বাছাইয়ের ক্ষেত্রে বিশেষ খেয়াল রাখতে হয়।

রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে ফাউন্ডেশন বাছাইয়ের ক্ষেত্রে কিছু সাধারণ কৌশল উল্লেখ করা হয়। এখানে সেগুলো তুলে ধরা হল।

তিনটি আলাদা শেইড নিয়ে থুতনির উপরে মিলিয়ে নেওয়া

ত্বকের সঙ্গে ফাউন্ডেশনের শেইড মানানসই কিনা সেটি বেছে নেওয়া বেশ দুষ্কর। হাওয়াইয়ের মেইকআপ আর্টিস্ট কেসিয়া লিটম্যান এ বিষয়ে কথা বলেন।

ত্বকের রংয়ের তুলনায় বেশি গাঢ় বা বেশি হালকা কোনোটাই মানানসই নয়। আবার ফাইন্ডেশন বাছাইয়ের সময় গোলাপি এবং কমলা শেইডের বিষয়ও মাথায় রাখতে হয়।

লিটম্যান বলেন, “ত্বকের সঙ্গে মানাবে এমন তিনটি আলাদা শেইড বেছে নিয়ে থুতনির উপরের ত্বকে লাগিয়ে দেখতে হবে। যে শেইড সব থেকে বেশি মানানসই মনে হবে ওই শেইডই বেছে নিতে হবে। কারণ হাতের উল্টো পিঠে শেইড মেলানোর ক্ষেত্রে, অনেক সময়ই তা ত্বকের রংয়ের সঙ্গে মানায় না।”

দুটি ভিন্ন শেইড ব্যবহার

ত্বকের ভিন্ন ভিন্ন অংশে রোদের তাপ পড়ার পার্থক্যের কারণে ত্বকের রংয়েও পার্থক্য হয়। যেমন কপালের রং থুতনি বা তার নিচের ত্বকের রংয়ের তুলনায় গাঢ় হয়। তাই দুটি ভিন্ন শেইডের ফাউন্ডেশন বেছে নিতে হয়।

লিটম্যান বলেন, “কপালে রোদের তাপ বেশি পড়ে। তাই কপালের রং কিছুটা গাঢ় হয়। ফাউন্ডেশন বাছাইয়ের ক্ষেত্রে দুধরনের শেইড বেছে নিলে দেখতে অনেক স্বাভাবিক লাগবে।”

তাছাড়া কাউন্টারিং করার জন্যও দু’ধরনের শেইডের ফাউন্ডেশন ব্যবহার করতে হবে।

ফাউন্ডেশন কেনার আগে জেনে নিন ত্বকের ধরণ

ত্বকের ধরণ বুঝে ফাউন্ডেশন বাছাই করা অত্যন্ত জরুরি। শুষ্ক ত্বকের জন্য যে ধরনের ফাউন্ডেশন মানানসই, তা তৈলাক্ত ত্বকে ব্যবহার করা যাবে না। আবার তৈলাক্ত ত্বকের ফাউন্ডেশন শুষ্ক ত্বকে ব্যবহার করলে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে যাবে।

লিটম্যান জানান, তৈলাক্ত ও মিশ্র ত্বকের জন্য পাউডার ফাউন্ডেশন বা ক্রিম টু পাউডার ফর্মুলার ফাউন্ডেশন বেছে নেওয়া যেতে পারে। সাধারণ ত্বকের জন্য নিজের পছন্দমতো ফাউন্ডেশন বেছে নেওয়া যেতে পারে তবে লিটম্যান মনে করেন লিকুইড ফাউন্ডেশনই বেশি মানানসই।

আর শুষ্ক ত্বকের জন্য ময়েশ্চারাইজার সমৃদ্ধ ফাউন্ডেশন ত্বকের জন্য উপকারী।

ফাউন্ডেশন ব্রাশ

ত্বকের সব অংশে সমানভাবে মেইকআপ পূর্ণ করার প্রয়োজন হয় না। তাই ফাউন্ডেশন ত্বকে নিখুঁতভাবে লাগানোর জন্য ভালো ব্রাশ ব্যবহারের পরামর্শ দেন লিটম্যান। কারণ ব্রাশের সাহায্যে ত্বকে প্রয়োজন অনুযায়ী ফাউন্ডেশন ছড়িয়ে দেওয়া যায়।

ত্বকে ফাউন্ডেশন লাগান স্ট্রিপলিং টেকনিকে

লিকুইড বা ক্রিম ফাউন্ডেশন লাগানোর ক্ষেত্রে কখনও ঘষে ঘষে লাগানো উচিত নয়। এক্ষেত্রে ত্বকে আলতো করে চেপে চেপে ফাউন্ডেশন লাগানো উচিত। এতে ফাউন্ডেশন ত্বকের উপর ভেসে থাকে না এবং দেখতে স্বাভাবিক মনে হয়।

উপর থেকে নিচে টেনে ফাউন্ডেশন লাগাতে হবে

ত্বকের যত্নে সবসময় নিচ থেকে উপরের দিকে ম্যাসাজ করার পরামর্শ দেন ত্বক বিশেষজ্ঞরা। তবে ফাউন্ডেশন লাগানোর ক্ষেত্রে সবসসময় নিচের দিকে টেনে ফাউন্ডেশন লাগাতে হয়।

নিচ থেকে উপরে টেনে লাগালে ত্বকের লোমকূপ বেশি দৃশ্যমান হতে পারে। তাই যদি টেনে টেনে ফাউন্ডেশন লাগাতে হয় তাহলে উপর থেকে নিচের দিকে টেনে ফাউন্ডেশন লাগাতে হবে।

ত্বকের মাঝামাঝি থেকে শুরু করতে হবে

লিটম্যান বলেন, “আমাদের ত্বকের টি-জোন অংশে লালচেভাব বা যে কোনো সমস্যা বেশি থাকে। তাই এই অংশে কভারেজও প্রয়োজন বেশি। তাই কপালে, নাকে, থুতনিতে এবং গালের উঁচু অংশে ফাউন্ডেশন নিয়ে তারপর ত্বকের অন্যান্য অংশে ছড়িয়ে দিতে হবে।”

এতে ত্বকের প্রয়োজনীয় অংশগুলোতে সমানভাবে ফাউন্ডেশন মিশিয়ে দেওয়া যাবে।

পাউডার লাগান টি-জোনে

ফাউন্ডেশন দেওয়ার পর তা যদি ত্বকে ভেসে থাকে তাহলে মেইকআপের পুরো কষ্টই মাটি! তাই ফাউন্ডেশন ভালোভাবে লাগানোর পর তা সেট করতে সেটিং পাউডার ব্যবহার করতে হয়।

আর যেহেতু ত্বকের ‘টি-জোন’ অংশে তেল বেশি হয় তাই ওই অংশগুলোতে একটু বেশি পাউডার ব্যবহার করতে হবে।

Share This Post

Post Comment