চুল কাটতে যাচ্ছেন? মনে রাখুন এই ৬টি টিপস

চুল কাটতে যাচ্ছেন? মনে রাখুন এই ৬টি টিপস

কাটতে চাইলেন এক রকম, কিন্তু কাটার পর দেখাচ্ছে অন্যরকম। চেহারাটাই একদম বাজে দেখাচ্ছে! কিংবা যেটুকু কাটতে চেয়েছিলেন, কাটা হয়ে গিয়েছে তার চাইতে অনেকটাই বেশী। অথবা নতুন হেয়ার কাট আপনাকে মানাচ্ছে না মোটেও। এই সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি চান? মনে রাখুন এই ৬টি টিপস।

মুখের শেপ আগে চিনে নিন

সঠিক স্টাইলে চুল কাটতে নিজের মুখের শেপ সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন। মুখের শেপ মানে আপনার চোয়ালের শেপ কেমন। একেক মুখে একেক হেয়ারকাট মানায়।

মানাবে কি মানাবে না, সেটা জানার আছে কৌশল

ওভাল শেপ হচ্ছে সবচাইতে আকর্ষণীয়। যদি হেয়ারকাট আপনার মুখকে ওভাল শেপ করে তোলে, তখনই দেখতে সবচাইতে সুন্দর লাগবে। নিজের মুখের শেপ কাগজে একে নিন বা নিজের ছবির ওপরে পছন্দের হেয়ার স্টাইল এঁকে দেখুন। যদি দেখতে পান যে মুখ গোল দেখাচ্ছে, বুঝবেন যে হেয়ার কাটটি আপনাকে মানিয়ে যাবে।

নিজের চুলকে জানুন

নিজের চুলের ভলিউম, টেক্সচার ইত্তাদিকে জানুন। আপনি সোজা চুলে যে স্টাইল করতে পারবেন, কোঁকড়া চুলে সেটা বানাবে না। রুক্ষ্ম আর মোলায়েম চুলের স্টাইলও এক হবে না কখনো। তাই হেয়ার এক্সপার্টের সাথে কথা বলেই স্টাইল বাছুন।

প্রত্যাশা রাখুন বাস্তব সম্মত

এখন স্টারের মত হেয়ার স্টাইল করলেন বলেই আপনাকে দেখতে তাঁর মত মনে হবে এমনটা ভাবতে যাবেন না ভুলেও। অন্ধ অনুকরণ না করে নিজের সাথে মানানসই হেয়ার কাট বেছে নিন।

নিজের লাইফ স্টাইলকে মাথায় রাখুন

অনেক হেয়ার কাটই আছে, যেগুলো মেইনটেইন করতে হয়। যত্ন করে এটা-সেটা না করলে দেখতে সুন্দর লাগে না। এমন অবস্থায় আগে ভেবে দেখুন আপনার কাছে কতটুকু সময় আছে চৈনিক চুলের পেছনে ব্যয় করার মত।

চুল কাটতেই চান নিশ্চিত হয়ে নিন

অনেক নারীই চুল কেটে ফেলার পর মন খারাপ করেন। কেননা চুল যে বাড়তে সময় নেয়! তাই আগেই মনস্থির করে নিন যে কতটা চুল কাটতে চান এবং কী পরিবর্তন চান চুলে।

Share This Post

Post Comment