ত্বক সুস্থ রাখতে

ত্বক সুস্থ রাখতে
শীতের সময়টাতে স্বাভাবিকভাবেই ত্বকে নানান ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। এ সময় সব ধরনের ত্বকেরই প্রয়োজন হয় একটু বাড়তি যত্নের। সাধারণ সমস্যাগুলোর পাশাপাশি ত্বকের কিছু রোগও দেখা দেয় এ সময়। শীতে ঠোঁট ফাটা, পা ফাটার মতো সমস্যার পাশাপাশি আরও কিছু সমস্যা হতে পারে। বয়সভেদে ত্বকে ভিন্ন ভিন্ন সমস্যা হতে পারে।
শুষ্ক চামড়া উঠে আসা-
এই আবহাওয়ায় কারও কারও ত্বকের কিছু অংশ শুষ্ক হয়ে উঠে আসতে পারে। এটি খুবই স্বাভাবিক একটি বিষয়। এমনটা হলে ত্বকে নিয়মিত ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে অবশ্যই। সমস্যার মাত্রা বেশি হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

শিশুর ত্বকে-
শীতের সময় শিশুদের ত্বকের চামড়া উঠে আসতে পারে। কোমল ত্বকে হতে পারে প্রচণ্ড চুলকানি। শিশুর হাতের সামনের অংশে এবং পায়ের পেছনের অংশে হতে পারে এ ধরনের সমস্যা। এর নাম অ্যাটোপিক ডার্মাটাইটিস। এ ক্ষেত্রে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া প্রয়োজন।

বয়স যাঁদের একটু বেশি-
একটু বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে ত্বক লাল হয়ে যাওয়া, চামড়া উঠে আসা এবং চুলকানির মতো সমস্যা হতে পারে। পায়ের সামনের অংশ এবং হাতের পেছনের অংশের ত্বকে এ সমস্যা হয়ে থাকে। ত্বকের শুষ্কতা থেকে হওয়া এ সমস্যার নাম জেরোটিক ডার্মাটাইটিস। এ রোগে আক্রান্ত হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন।

অন্যান্য সমস্যা
তীব্র শীতে কারও কারও ত্বকে চাকা চাকা দাগ হতে পারে। একে বলা হয় কোল্ড আর্টিকেরিয়া।
শুষ্ক ত্বকে চুলকানি হতে পারে।

সমস্যা এড়াতে
ত্বকে পানি লাগানোর পরে ত্বক মুছে নিয়ে অলিভ অয়েল অথবা নারকেল তেল লাগাতে পারেন। তবে যাঁরা ত্বকে তেল ব্যবহার করতে চান না, তাঁরা ময়েশ্চারাইজিং লোশন বা ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। পা ফাটার সমস্যায় পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাতে পারেন। আর ঠোঁট ফাটার জন্য ব্যবহার করতে পারেন পেট্রোলিয়াম জেলি বা লিপজেল।

Share This Post

Post Comment