উজ্জ্বল ত্বক পেতে ঘরোয়া প্যাক

উজ্জ্বল ত্বক পেতে ঘরোয়া প্যাক

লম্বা চুল , পরিষ্কার ত্বক এবং উজ্জ্বল রং- যে কোন তন্বী নারীর স্বপ্ন। সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য ভালই কসরত করতে হয়। আজ উজ্জ্বল রং এর জন্য তন্বীদের কিছু দারুন সব ঘরোয়া বিউটি টিপসের কথা বলবো। তবে তার আগে একটা কথা বলতেই হয়। যতই আমরা ফেস প্যাক লাগাই বা পার্লারে যাই, এতে তো কিছু হলেও ফল পাওয়া যায়। কিন্তু এই ফলটাকে দীর্ঘ দিন ধরে রাখতে গেলে আমাদের নিজেদের কিছু অভ্যাস পাল্টাতে হবে। ডায়েট মেনে খাবার খাওয়া, রাতে ঠিক সময় ঘুমোতে যাওয়া ইত্যাদি ইত্যাদি।

অতিরিক্ত পরিশ্রমের ছাপ আমাদের ত্বকের ওপর পরে। ফলে অনেক সময় ত্বক নির্জীব ও কালো দেখায়। তাই আমাদের ত্বকের নিয়মিত যত্ন প্রয়োজন। ত্বকে উজ্জ্বল ও সুস্থ রাখতে আমরা কতগুলি অভ্যাস আয়ত্ত করতে পারি। যেমন-

১. প্রতিদিন ৮ গ্লাস জল খাবার অভ্যাস তৈরি করুন।
২. ভালো ঘুম ত্বকের জন্য খুব প্রয়োজন। তাই রাতে দেরী করে না ঘুমিয়ে তাড়াতাড়ি শুয়ে পরুন।
৩. প্রতিদিন অন্তত 30 মিনিট ব্যায়াম করার অভ্যাস তৈরি করুন।
৪. ত্বকের যত্ন করার জন্য একটি রুটিন অনুসরণ করুন।
৫. এছাড়া নিয়মিত ত্বকের স্ক্রাবিং করুন। এতে আপনার ত্বকের মৃত কোষ ঝরে যাবে এবং ত্বক দেখাবে উজ্জ্বল। স্ক্রাবার হিসেবে ওটমিল ব্যবহার করতে পারেন। এছারাও বাজারে অনেক অপশন আছে!
৬. প্রতি রাতে ঘুমানোর আগে আপনার মেকআপ মুছে ফেলতে ভুলবেন না কিন্তু।
৭. আপনার খাদ্যের ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার আছে কিনা তা অবশ্যই দেখে নেবেন। ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার আপনার ত্বকের একটি প্রাকৃতিক আভাস আনতে সাহায্য করবে। ভিটামিন সি ট্যাবলেট হিসাবেও আপনি আপনার লাঞ্চের পরে প্রতি দিন একটা করে নিতে পারেন।

ফেয়ার স্কিন জন্য ঘরোয়া বিউটি টিপস:
সুতরাং, এখন প্রশ্ন হলো কি করে আমরা উজ্জ্বল ত্বক পেতে পারি? প্রাচীনতম এবং সবচেয়ে জনপ্রিয় কিছু ঘরোয়া বিউটি টিপস আছে যা আমাদের ত্বকের রং কে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।

১. চায়ের জল এবং মধু্র মুখে প্যাক :
কি কি লাগবে- ১ কাপ ঠাণ্ডা চা এর জল, চালের ময়দা ২ চামচ, ১/২ চামচ মধু
চালের ময়দা খুব ভাল স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করে এবং মধু ত্বকে মশ্চারাইজ করতে সাহায্য করে।

পদ্ধতি:
উপরোক্ত উপকরণগুলি দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করুন এবং ত্বকে প্রয়োগ করুন। মাস্কটি প্রায় ২০ মিনিট বা তার বেশী সময় পর্যন্ত মুখে লাগিয়ে রখুন। যতক্ষণ না প্যাকটি সম্পূর্ণ শুকিয়ে আসে। প্যাকটি শুকিয়ে এলে জল দিয়ে পরিষ্কার করার আগে, একবার মুখের ত্বক ম্যাসেজ করে নিন। এতে মৃত চামড়া সরে যাবে এবং চামড়া টানটান দেখাবে। এরপর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

২. ওটস এবং লেবুর প্যাক :
কি কি লাগবে- ১ চামচ ওটস (গরম করে গুঁড়ো করে নিন) ও ১ চামচ লেবুর রস। যদি আপনার ত্বক সংবেদনশীল হয় তাহলে আপনি জল সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন।

পদ্ধতি:
উপরোক্ত উপকরণ দিয়ে একটি মিশ্রন বানিয়ে মুখের লাগান। ২০ মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৩ . হলুদ এবং লেবুর প্যাক :
কি কি লাগবে- আটা, হলুদ, লেবু রস, ও দুধ

পদ্ধতি:
সমস্ত উপকরণ ১ চামচ করে মেশান এবং মুখের ওপর সমানভাবে লাগান।
৫ মিনিটের জন্য প্যাকটি মুখে আলতো করে স্ক্রাবিং করুন এবং পরে ২০ মিনিটের জন্য শুকাতে দিন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন।

৪. হলুদ ও টমেটো প্যাক :
কি কি লাগবে- হলুদ ও তাজা টমেটো থেঁতো করা জুস

পদ্ধতি:
টমেটো জু্সের সঙ্গে হলুদ মিক্স করে মিশ্রণটি আপনার মুখের প্রয়োগ করুন এবং এটি শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
এই প্যাকটি ঘরে তৈরি করা খুব সহজ এবং এর ফলও খুব ভালো পাওয়া যায়। তাই নারীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় প্যাক। আপনি ইচ্ছে করলে শুধু টমেটো থেঁতো করেও ত্বক ম্যাসেজ করতে পারেন। ১৫-২০ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলুন। তফাৎ আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন।

৫ . হলুদ দিয়ে প্যাক :
হলুদ দিয়ে ফেস প্যাক একটি সব সময় জনপ্রিয়! বিবাহ আগে প্রত্যেকটি নারীকে হলুদ মাখানো হয়। গাঁয়ে হলুদ অনুষ্ঠান ভারতীয় সমাজের একটি গুরুতবপুর্ন রীতি। হবেই না কেন? নারী যে হলুদ মেখে আরও রূপসী হয়ে ওঠে।

হলুদ দিয়ে প্যাক বানাতে আপনার যা যা লাগবে- ময়দা ( স্ক্রাবার ), হলুদ এক চিম্টি ( ত্বকে উজ্জ্বল করতে )ও দুধ (মশ্চারাইজার )

পদ্ধতি:
ময়দা, হলুদ এক চিম্টি ও দুধ এক সঙ্গে মেশান এবং প্যাকটি ৫ মিনিটের জন্য আপনার মুখে আলতো করে স্ক্রাব করুন এবং 20 মিনিটের জন্য রেখে দিন। শুকিয়ে এলে জল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন।

৭ . দই এবং শুকনো কমলালেবুর খোসার প্যাক:
কি কি চাই- শুকনো কমলালেবুর খোসা এবং টাটকা দই
ফল খাওয়া র পরে ঐ কমলার খোসা না ফেলে খোসা ড্রাই করে রাখুন।

পদ্ধতি:
১ চামচ কমলার খোসার গুঁড়োর সঙ্গে ১ চামচ দই মিশিয়ে, প্যাকটি ১৫-২০ মিনিটের জন্য আপনার মুখে প্রয়োগ করুন শুকিয়ে এলে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।

৮. দই এবং লেবুর প্যাক :
যা যা লাগবে- টাটকা দই এবং লেবুর রস

পদ্ধতি:
১ চামচ দই এর সঙ্গে ১ চা চামচ লেবুর রস ভাল করে মেশান। মিশ্রনটি ১৫-২০ মিনিটের জন্য আপনার মুখে প্রয়োগ করুন শুকিয়ে এলে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।
এটি আপনার ত্বকের শুধুমাত্র উজ্জ্বলই করবে না এ আপনার ত্বকে যদি ব্রণ চিহ্ন বা কোন কাল দাগ থাকে তা কমাতে সাহায্য করবে।

৯. দুধ , লেবুর রস ও মধুর প্যাক :
কি কি চাই- দুধ, লেবু রস,ও মধু

পদ্ধতি:
১ কাপ দুধ বা দুধের গুঁড়াও ব্যবহার করতে পারেন এর সঙ্গে মধু ও লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। ১৫-২০ মিনিট মিখে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।

এই ভাবে আপনি পেঁপে ও মুলতানি মাটির প্যাক যা গ্রীষ্মের জন্য আদর্শ, তাছাড়া আলুর রস, আলুর টুকরা বা পেস্ট দিনে দুইবার ব্যবহার করতে পারেন,লেবু বা কমলা রস কাঁচা দুধ সঙ্গে মিশিয়ে মুখে, শরীরের খোলা অংশে ব্যবহার করুন এতে কালো দাগ সহজেই দূর হবে।

আমাদের দেশে ঐতিহ্যবাহী একটি প্যাক হল বেসন, হলুদ এবং দই এর মিশ্রণ। হলুদ ত্বককে উজ্জ্বলতা দেয় এবং কাল দাগ সরিয়ে ফেলতে সাহায্য করে। দই অত্যধিক রোদে পোড়া দাগ মুছে ফেলে, এবং, বেসন আপনার ত্বকের পরিশোধক হিসেবে কাজ করে। সপ্তাহে তিন দিন প্যাকটি ব্যবহার করে দেখুন। আপনার থেকে কেউ চোখ সরাতে পারবেনা।

Share This Post

Post Comment