নাকের ত্বকের যত্ন

নাকের ত্বকের যত্ন

মানুষের মুখমণ্ডলের সৌন্দর্যের মধ্যে নাক হলো অন্যতম। অনেক সময় আলসেমির কারণে নাকের যত্ন নেয়া হয় না। তখন নাক খসখসে হয়ে যায়। নাকে দাগ পড়ে যায়। ফলে মুখমণ্ডল শ্রীহীন হয়ে যায়। তাই নাকের যত্ন নিতে আপনার হাতের নাগালেই রয়েছে সব উপকরণ। এবারের রূপচর্চার আয়োজনে তুলনামূলক অবহেলিত নাকের ত্বকটির যত্নআত্তি জানিয়ে দিচ্ছি আপনাদের।

– নাকের দু’পাশে অনেক সময়ই কালচে ছোপ দেখা যায়, এর থেকে মুক্তি পেতে ১ চামচ মুলতানি মাটি, ৪/৫টা লবঙ্গ গুঁড়ো গোলাপ জলে গুলে নাকের উপর লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে এলে ধুয়ে ফেলুন। এছাড়া নাকের উপর থেকে কালচে ছোপ দূর করতে টক দই, মধু ও ডিমের সাদা অংশ একসঙ্গে মিশিয়ে প্যাক হিসেবে ব্যবহার করুন।

-আপনার নাকটি যদি অয়েলি টি জোনের অন্তর্ভুক্ত থাকে তবে প্রতিদিন রুটিন করে এক টেবিল চামচ এলোভেরার সাথে ১ চা চামচ শশার রস মিশিয়ে মিশ্রণটি কটন প্যাডে লাগিয়ে ২০ মিনিটের আপনার নাকে লাগান।

-দুধে ১ চিমটি খাবার সোডা মিশিয়ে নিতে হবে। এর মধ্যে তুলা ভিজিয়ে নাকের উপর আলতো করে মুছে নিতে হবে। এতে নাকের উপরে জমে থাকা ধুলো পরিষ্কার হবে।

-ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে গেলে নাকের উপরে এবং দু’পাশে আলগা মরা চামড়া দেখা যায়। কমলার খোসা গুঁড়া, আমন্ড পাউডার ও ভুসি দুধের সঙ্গে মিলিয়ে ভেজা ত্বকে লাগিয়ে আলতোভাবে মরা চামড়ার উপর লাগান।

-অনেক সময় নাকের পাশের লোমকূপের মুখ বড় হয়ে যায়। ১ চামচ ওটমিল পাউডারের সঙ্গে আধা চামচ পাতিলেবুর রস সামান্য পানি দিয়ে মিশিয়ে লাগান। মিনিট কুড়ি পরে ধুয়ে ফেলুন।

-নাকের ত্বক মসৃণ করতে ১ চামচ মধু, ১০-১২ ফোঁটা লেবুর রস, ২ চামচ গাজরের রস ও ১ চামচ বেসন এক সঙ্গে মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে লাগিয়ে রাখুন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

-আমন্ড গুঁড়া করে এর সাথে গ্লিসারিন এবং এক চা চামচ মুলতানি মাটি মিশিয়ে স্ক্রাব হিসেবে নাকে হালকাভাবে ঘষুন। তবে মিহি গুঁড়া করবেন না একটু যেন দানাদার থাকে। এতে নাকের ত্বকের মরা কোষ দূর হবে।

-নাকের উপর থেকে কালো ছোপ দূর করতে টকদই, মধু ও ডিমের সাদা অংশ এক সঙ্গে মিশিয়ে প্যাক হিসেবে ব্যবহার করুন।

-নাকের ত্বকে হোয়াইট হেডস হলে আতপ চালের গুঁড়োর সঙ্গে মসুর ডাল বাটা লাগালে এর থেকে মুক্তি পাবেন।

-নাকের উপর ও চারপাশে দুধ দিয়ে পরিষ্কার করে ক্লিনজিং মাস্ক লাগাতে হবে। দই, ডিম, মধু ও সামান্য পরিমাণ হলুদ একসঙ্গে মিশিয়ে নাকের উপর লাগিয়ে রাখুন। মিনিট দশেক পরে ধুয়ে ফেলুন। ফলে সব সময় নাকের উপর ও চারপাশ পরিষ্কার থাকবে। সহজে কোন ছোপ বা ব্ল্যাক হেডস হবে না।

-নাকের চারপাশের ত্বক খুব বেশি শুষ্ক হয়ে গেলে রোজ নারকেল তেল ও আমন্ড অয়েল এক সঙ্গে মিশিয়ে দিনে ২ বার ম্যাসেজ করলে শুষ্কতা থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

-তরমুজের রস আর লেবুর রস ত্বক কে ঠান্ডা করার পাশাপাশি ত্বককে নরম করে।অন্যদিকে লেবু প্রাকৃতিক পরিষ্কারক। তাই নাকের অংশের অতিরিক্ত তৈলাক্ত ত্বকে প্রতিদিন সকালে এটা লাগান।

-আপনি যদি নাকে ব্ল্যাকহেডসের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে থাকেন তবে শশা, তুলসী, গোলাপজল ও নিম পাতার মিশ্রণ নিয়মিত ব্যবহার করুন।

-ঘরোয়া পদ্ধতিতে নাকের ত্বকে্র স্ক্র্যাব তৈরি করতে পারেন। এজন্য চিনি, লেবুর রস এবং অলিভ অয়েল দিয়ে মাস্ক তৈরি করে নিন। এবার কিছুক্ষণ এই মিশ্রণ দিয়ে ত্বক ম্যাসাজ করে ধুয়ে নিন। চালের গুঁড়াও স্ক্র্যাব হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

আজকালকার মেয়েরা অনেক সচেতন কিন্তু সৌন্দর্যের অন্যতম অঙ্গ নাকের প্রতি আমাদের উদাসীনতা দেখা যায়। চুল, চোখ, ঠোঁট, হাত, পা’র যত্নের পাশাপাশি নাকেরও সমান যত্ন প্রয়োজন।

Share This Post

Post Comment