ফুলের ছোঁয়া শীতকালের রূপচর্চা

ফুলের ছোঁয়া শীতকালের রূপচর্চা
full-acholশীতের দিনে ত্বক শুষ্ক হয়ে পড়ে। ত্বকের ওপরে মরা কোষ জমে দেখা যায় কালচে ভাব। ফুল ব্যবহারে ত্বকের কালোভাব অনেকাংশে দূর হতে পারে তা অনেকেরই অজানা। গোলাপ ত্বক উজ্জ্বল করে আর যুঁই চোখে আনে প্রশান্তি।

ফারনাজ আলম বলেন, ত্বকের কালোভাব দূর করতে গোলাপ খুবই উপকারী। ওট গুঁড়ার সঙ্গে গোলাপের পাপড়ি বাটা মিশিয়ে হতে পারে চমৎকার স্ক্রাব। ত্বক পরিচর্যায় পানির বদলে ফেসপ্যাকের সঙ্গে গোলাপ জল মিশিয়ে ব্যবহার করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে।

ক্যামোমাইল ফুলের পাপড়ি সিদ্ধ করা পানিতে মধু ও সামান্য দুধ মিশিয়ে মুখে লাগান। এটি ত্বক নরম করে। ক্যামোমাইল ফুলের মৃদু এসিড লোমকূপে জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করে ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলে।
সারা রাত পানিতে যুঁই ভিজিয়ে রাখুন। যুঁইয়ের নির্যাস সমৃদ্ধ এই পানি ফ্রিজে রেখে বরফ করে নিন। বরফ কুচির সঙ্গে ফ্রেশ ক্রিম মিশিয়ে মুখে লাগান। শীত মৌসুমে দুপুরের রোদে গেলে ত্বকে যে কালো ছোপ ছোপ দাগ পড়ে তা কমাতে মিশ্রণটি ব্যবহার করুন।

ফারনাজ আলম বলেন, আমরা জানি ধরন অনুযায়ী ত্বক চার রকম_ তৈলাক্ত, শুষ্ক, মিশ্র ও স্বাভাবিক। কিন্তু শীতকালে ত্বকে শুষ্কভাব লক্ষ্য করা যায়। তবে যাদের ত্বক আগে থেকেই শুষ্ক তাদের ক্ষতির মাত্রা অনেক বেশি থাকে। এজন্য তাদের ত্বক পরিচর্যায় আরও মনোযোগী হতে হবে। ডে ক্রিম ও নাইট ক্রিম দুটিতেই ময়েশ্চারাইজার থাকতে হবে। শীতকালে অবশ্যই মাইল্ড ফেসওয়াশ ব্যবহার করা উচিত। কারণ হার্ড সোপ ত্বকের ন্যাচারাল অয়েল সরিয়ে দেয়। এতে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে ফারনাজ আলম বলেন, আমাদের খেয়াল রাখতে হবে, আমরা যেন ড্রাই ও ডিহাইড্রেটেড স্কিনের মধ্যে ধন্দে না পড়ি। অনেকেই আমাকে বলেন, ময়েশ্চারাইজার লাগানো সত্ত্বেও ত্বকের শুষ্কতা কমছে না। এক্ষেত্রে ধরে নিতে হবে তার স্কিন ডিহাইড্রেটেড। আমার পরামর্শ, ত্বকে এমন অবস্থা দেখা দিলে প্রতিদিন কমপক্ষে ৬ থেকে ৮ গ্গ্নাস পানি পান করুন। সেই সঙ্গে ত্বকে হাইড্রেটিং ক্রিম ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

মেকআপে ফাউন্ডেশনের ব্যবহার নিয়ে ফারনাজ আলম বলেন, শীতকালে মেকআপের জন্য লিকুইড ফাউন্ডেশন বেছে নিন। এটি ত্বকের উজ্জ্বল ভাব বাড়াবে। নিজের ত্বকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে ফাউন্ডেশনের রঙ বেছে নিন। তারপর স্পঞ্জ বা ফাউন্ডেশন ব্রাশ দিয়ে ফাউন্ডেশন লাগান। গাল খুব ফোলা হলে প্রথমে ত্বকের রঙের ফাউন্ডেশন লাগান। ভালো করে বেল্গন্ড করার পর একশেড ডার্ক শেডের ফাউন্ডেশন গালের ফোলা অংশের ওপর লাগান।
চওড়া থুঁতনির সমস্যায় যারা ভুগছেন তাদের জন্য ফারনাজ আলম বলেন, দুই রকম শেডের ফাউন্ডেশন ব্যবহার করুন। নিজের ত্বকের কাছাকাছি রঙের ফাউন্ডেশন মুখের বাকি অংশে লাগান। স্কিন টোনের চেয়ে একশেড গাঢ় ফাউন্ডেশন লাগান লাইনে এবং কানের গোড়া থেকে গালের দিকে। শীতকালে প্রকৃতি থেকে হারিয়ে যায় সবুজের সমারোহ। গাছগুলো হয়ে পড়ে বিবর্ণ। কুয়াশার চাদরে ম্লান হয়ে পড়ে পরিবেশের সৌন্দর্য। ফারনাজ আলম বলেন, মেকআপে আমার এবারের থিম গেল্গা ইন দ্য ডার্ক।

তিনি বলেন, শীত ছিনিয়ে নেয় সবুজকে। প্রকৃতির সবুজকে ফিরিয়ে আনতে আমি মেকআপে আইশ্যাডো হিসেবে রেখেছি সবুজ রঙ। চোখের ওপরের পাতার ভেতরের কোণে অল্প ও বাইরের কোণে একটু বেশি করে লাগিয়েছি সবুজ আইশ্যাডো। চোখের নিচের পাতায়ও দিয়েছি একই রঙের আইশ্যাডো। চোখের চারপাশে আই লাইনারের রেখা এঁকেছি চিকন থেকে মোটা করে। সিলভার হাইলাইটার দিয়েছি আইব্রোর ঠিক নিচে। আইব্রো এঁকেছি কালো ও ব্রাউন পেন্সিলে। গালে লাগিয়েছি লাইট পিঙ্ক বল্গাশা অন।

Share This Post

Post Comment