তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা এবং সমাধান

তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা এবং সমাধান

তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা এবং সমাধান

তৈলাক্ত ত্বকের প্রধান সমস্যা টি-জোন তেল চিটচিটে অথচ হাত-পায়ের চামড়া রুক্ষ নির্জীব। তৈলাক্ত ত্বকের প্রধান কিছু সমস্যার সমাধান নিয়েই আমাদের আজকের পর্ব-

ত্বক তৈলাক্ত,ফেশিয়াল করার পর ত্বক খুব সুন্দর দেখায়। কিন্তু ২-৩ দিন বাদেই আবার নির্জীব হয়ে যায়। কী করবেন ভেবে কুল পাচ্ছেন না তাই তো?সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার ফেশিয়াল স্ক্রাব ব্যবহার করুন। ওটের সঙ্গে ডিমের সাদা অংশ ভাল করে মিশিয়ে মুখে লাগান। তবে চোখ বা ঠোঁটের আশেপাশের অংশে লাগাবেন না। ১৫ মিনিট পরে পানি দিয়ে আস্তে আস্তে ঘষে তুলে ফেলুন। পুরো মুখ ভাল করে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। তৈলাক্ত ত্বকের জন্যে মুলতানি মাটি খুব ভাল। গোলাপ জল এবং লেবুর রস মুলতানি মাটির সঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগান। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বকে জেল্লা আসবে। মধু, লেবুর রস এবং ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। ১৫ মিনিট বাদে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের স্বাভাবিক জেল্লা ফিরে আসবে।

হাত এবং পায়ের চামড়া খুব রুক্ষ। আমি নিয়মিত ময়শ্চারাইজ়ার ব্যবহার করার পর ও রুক্ষ থাকলে, গোসলের আগে নিয়মিত তিলের তেল লাগান। মাইল্ড গ্লিসারিন সাবান বা সোপ ফ্রি শাওয়ার জেল ব্যবহার করুন। অন্যান্য ধরনের সাবান ব্যবহার না করাই ভাল। সাবান ব্যবহার না করে তোয়ালে ভিজিয়ে শরীরে ঘষতে পারেন। এতে ময়লা উঠে যাবে এবং ত্বকও রুক্ষ হবে না। গোসল করার পর, ত্বক ভেজা থাকতে থাকতে বডি লোশন লাগান। এতে শরীরের ময়শ্চার হারিয়ে যাবে না।

তৈলাক্ত ত্বকে ব্ল্যাক হেডের সমস্যা হয়। সকালে মুখ ধোয়ার পর, তুলো দিয়ে নাকে অ্যাস্ট্রিনজেন্ট লোশন লাগান। তারপর বেকিং সোডা আর পানি দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে ব্ল্যাকহেডের ওপর সাগান। ৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে প্রতিদিন এই মিশ্রণ ব্যবহার করতে হবে। সপ্তাহে ৩ দিন ফেশিয়াল স্ক্রাব ব্যবহার করুন। দোকানে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফেশিয়াল স্ক্রাব পাওয়া যায়। ঘরোয়া স্ক্রাব ব্যবহার করতে চাইলে চাল গুঁড়ো এবং গোলাপজল ভাল করে মিশিয়ে নাকে লাগাতে পারেন। আস্তে আস্তে ঘষুন। ৫ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

Share This Post

Post Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.